প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যুক্তরাজ্যের সংসদে বক্তব্য দিলেন প্রথম মুসলিম নারী মন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট: গত সপ্তাহে পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের জুনিয়র মন্ত্রীর দায়িত্ব নিযুক্ত হন যুক্তরাজ্যের প্রথম মুসলিম নারী মন্ত্রী নুস ঘানি। আর বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মতো হাউস অব কমনসের প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেওয়ার পর পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এই নারীকে অভিনন্দিত করেছেন সংসদ সদস্যরা।

পাকিস্তানের দখলকৃত কাশ্মির থেকে যুক্তরাজ্যে অভিবাসন নেওয়া বাবা-মায়ের সন্তান ঘানির জন্ম বার্মিংহামে। ২০১০ সালে ওই এলাকা থেকে কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী হওয়ার আগে ঘানি যুক্তরাজ্যের বৃদ্ধদের সহায়তা ও স্তন ক্যান্সারের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলার জন্য অর্থ সংগ্রহের কাজ করেছেন। এছাড়া তিনি ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিসেও কাজ করেছেন।

২০১৫ সালে কনজারভেটিভ পার্টির প্রথম মুসলিম নারী এমপি হিসেবে নির্বাচিত হন। এরপর ২০১৭ সালের নির্বাচনে জিতে ইতিহাস গড়েন। তিনি প্রথম ব্যক্তি হিসেবে উর্দুতে শপথ নেন।

মন্ত্রী হিসেবে হাউস অব কমনসে প্রথম অংশ নেওয়ার পর টুইটারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নুস ঘানি। এতে তিনি লেখেন, ‘যুক্তরাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী হিসেবে আমার সূচনায় একটি ছোট ইতিহাস হয়ে গেছে। প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে হাউস অব কমনসের প্রশ্নোত্তর পর্বে বক্তব্য দিয়েছি।’

গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র নতুন বছরের রদবদলের অংশ হিসেবে ৪৫ বছর বয়সী নুস ঘানিকে পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের জুনিয়র মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেন। সংসদে ক্ষমতাসীন দলের সহকারী হুইপ হিসেবেও নিয়োগ পেয়েছেন তিনি।

বিবৃতিতে ঘানি বলেন, ‘দুটি দায়িত্বই আমার জন্য রোমাঞ্চকর ও সাহসী সুযোগ। উইয়েলডেনের এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই পরিবহণ বিষয়টি নিয়ে আমি মনেপ্রাণে প্রচারণা চালিয়ে আসছি। তবে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বের বাইরেও আমি উইয়েলডেনের পক্ষে শক্তিশালী কণ্ঠস্বর হয়ে উঠবো আর আমাকে নির্বাচনকারীদের সেবা করে যাব।’

পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ক্রিস গ্রেইলিং বলেন, ঘানির পদোন্নতিতে প্রমাণ হয় যে কনজারভেটিভ পার্টিতে সুযোগ দেওয়া হয়। তিনি বলেন, ‘আমাদের দল প্রথম মুসলিম নারী মন্ত্রীকে পার্লামেন্টের প্রশ্নোত্তর পর্বে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ দিয়েছে।’

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত