প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গুলশান থানার ভুয়া ওয়ারেন্টে পাবনার ৪ জন গ্রেফতার

জুয়াইরিয়া ফৌজিয়া: ভুয়া ওয়ারেন্ট এবং এই মামলার কোনো অস্তিত্ব না থাকা সত্ত্বেও রাজধানীর গুলশান থানায় কথিত এক মামলায় পাবনার চাটমোহর থেকে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তবে আদালত বিস্ময় প্রকাশ করে সাথে সাথে তাদের জামিনও দিয়েছে।

ভুক্তোভোগীরা থাকেন পাবনায়, অথচ তারা গ্রেফতার হয়েছে রাজধানীর গুলশান থানার মামলায়। একটি দুটি নয়, তিনটি মামলায় ভুয়া ওয়ারেন্ট পাঠানো হয়েছে পাবনার চাটমোহরে এবং গ্রেফতারও হয়েছেন ৪ জন।

গত বছর ২ আগস্ট এই ঘটনার শুরু হয়। গুলশান থানায় দায়ের করা তিনটি মামলায় গ্রেফতার হয় চাটমোহরের বরদানগর গ্রামের তারিকুল, রুবেল, মিলন ও দবির। কিন্তু কোন মামলায় তাদের গ্রেফতার করা হয়, সেটা তারা জানতো না। পরবর্তীতে আদালতের বিভিন্ন নথি ঘেটে জানা যায়, গুলশান থানার একটি মামলায় তারা গ্রেফতার হয়েছেন।

ভুক্তোভোগীরা বলেন, আমারা ঢাকাই চিনি না। আমরা গ্রামে ভ্যান চালিয়ে আয় রোজগার করি।
এই ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ঢাকার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। কারণ গুলশান থানার যে মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে, সে মামলার কোন অস্তিত্বই নেই। বিষয়টি আমলে নিয়ে পরবর্তীতে তাদের মুক্তিরও নির্দেশ দেন আদালত।

তবে এখনো সেই গ্রামের সাধারন মানুষ ভুগছেন গ্রেফতার আতংকে। পরিবারের পুরুষরা দিনরাত পালিয়ে বেড়াচ্ছে মিথ্যা মামলার ভয়ে। আর এই ভুক্তভোগীদের অভিযোগের তীর স্থানীয় আব্দুল ওয়াহাবের ছেলে ওয়ালী উল্লাহর দিকে।

পাবনার চাটমোহরের ছাই কোলার ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম বলেন, এরা গরিব মানুষ। এদেরকে কেন মিথ্যা মামলার ভয় দেখিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে।

তবে অভিযুক্ত ওয়ালী উল্লাহ মুঠোফোনে বলেন, ঢাকায় ভুয়া মামলার বিষয়ে কিছু জানি না আমি।
তবে তার বাবাও এই বিষয়টি এড়িয়ে যায়।

পাবনার চাটমোহর থানার ওসি এস এম আহসান হাবীব বলেন, ঢাকা থেকে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা এলে আমরা দ্রুত আসামীদের ধরলেও বুঝতে পারেননি ভুয়া ওয়ারেন্টের বিষয়টি।

ভুয়া মামলার হয়রানি থেকে বাঁচতে ১২ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলন করেন ভুক্তোভোগীরা।

সূত্র : চ্যানেল টোয়েন্টিফোর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত