প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডাকসু নির্বাচন ইস্যুতে আদালতের রায়

মাহমুদুর রহমান মান্না : প্রায় পাঁচ বছর আগে নাগরিক ছাত্র ঐক্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার এক সমাবেশ আয়োজিত হয়েছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, যেখানে আমার প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু সেই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হতে পারেনি ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের বাধায়। এমনকি তাদের হুমকিতে ছাত্র ঐক্যে যোগদানকারী ছাত্ররা ক্যাম্পাসে নূন্যতম কর্মকান্ড পরিচালনা করতে পারেনি। হয়তো সবাই জানেন আমার নাম ডাকসু’র অফিস থেকেও মুছে ফেলা হয়েছে।

এই কথাগুলো বলার প্রসঙ্গ এসেছে আজ ডাকসু নির্বাচন নিয়ে হাইকোর্টের দেয়া রায় জেনে। আদালত ডাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য ছয় মাসের মধ্যে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দিয়েছেন। পদক্ষেপ নেয়া বলতে আদালত ঠিক কী বুঝিয়েছেন, সেটা পত্রিকার খবর থেকে স্পষ্ট নয়।আমি মনে করি, ডাকসু নির্বাচন এর পদক্ষেপ মানে হলো, সরকারি ছাত্র সংগঠনের দুর্বৃত্তায়ন এর কবল থেকে ক্যাম্পাসকে রক্ষা করে সব দল মতের ছাত্রদের ক্যাম্পাসে রাজনৈতিক কর্মকা- চালানোর সুযোগ তৈরি করা, সরকারি দলের বাইরে থাকা সব সংগঠন এর ছাত্রদের নির্বিঘেœ হলে থাকা এবং সাংগঠনিক তৎপরতা চালানোর স্বাধীনতা নিশ্চিত করা।

এখানে স্মরণ করব, আফসানা আহমেদকে যাকে শুধুমাত্র ছাত্রলীগের মিছিলে না যাবার ‘অপরাধে’ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হল থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল।
একটা ভয়হীন ক্যাম্পাস ডাকসু নির্বাচনের পুর্বশর্ত
পরিচিতি : সাবেক ঢাকসু নেতা/ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত