প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডিএনসিসির উপ-নির্বাচন
আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন আতিকুল

জাহিদ হাসান : ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) উপ-নির্বাচনে আতিকুল ইসলামকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার নির্বাচনের মনোনয়ন বোর্ডের সভায় আতিকুলের প্রার্থিতা চূড়ান্ত হয়।

সভা শেষে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ঢাকা উত্তরে মেয়র পদে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হবেন আতিকুল ইসলাম।

ডিএনসিসির উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট করতে আগ্রহী ১৭ প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র জমা দেন। যারা মনোনয়নপত্র জমা দেন, তারা হলেন- বিজেএমইএ’র সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম, সাবেক সংসদ সদস্য এইচ বি এম ইকবাল, রাসেল আশেকী, আদম তমিজি হক, মনিপুর স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ফরহাদ হোসেন, সাবেক অধ্যক্ষ শাহ আলম, এফবিসিসিআইর পরিচালক হেলাল উদ্দিন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বাংলাদেশ টুডের সম্পাদক জোবায়ের আলম, মো. আবেদ মনসুর, মো. ইয়াদ আলী ফকির, শামীম হাসান, মোমতাজ উদ্দিন আহমেদ (মেহেদী), মো. আবুল বাসার, মো. জামাল ভূঁইয়া, মো. ওসমান গণি ও আসমা জেরিন ঝুমুসহ ১৭ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থনে আনিসুল হক মেয়র নির্বাচিত হন। মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পরই তিনি উত্তর সিটি কর্পোরেশনকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা করেন। সিটি কর্পোরেশনকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা ছাড়াও বেশ কিছু উন্নয়ন কাজে হাত দেন। এ ছাড়া উত্তরের যানজট নিরসনেও বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। তার কর্মপরিকল্পনা ও বিভিন্ন পদক্ষেপে খুব অল্প সময়ে জনগণের প্রসংশা কুড়ান। গত ৩০ নভেম্বর লন্ডনে মেয়র আনিসুল হক মারা যাওয়ার পর ৪ ডিসেম্বর পদটি শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে তাবিথ আউয়ালকে মনোনয়ন দিয়েছে বিএনপি। গতকাল সোমবার গুলশান কার্যালয়ে মনোনয়ন বোর্ডের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এর আগেও ডিএনসিসি নির্বাচনে প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের বিপরীতে অংশ নিয়েছিলেন তাবিথ। তবে ভোটের দিন দুপুরে নির্বাচন বর্জন করেন ২০ দলীয় জোটের এ প্রার্থী।

আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ডিএনসিসির মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে মোট ২৯ লাখ ৪৮ হাজার ৫১০ জন ভোটার ভোটদানে সুযোগ পাচ্ছেন। ভোটগ্রহণ হবে ১ হাজার ৩৪৯টি কেন্দ্রের ৭ হাজার ৫১৬টি ভোটকক্ষে।

এছাড়া নতুন ১৮টি ওয়ার্ডে ও ৬টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর নির্বাচনে ৫ লাখ ৭১ হাজার ৬৮৪ জন ভোটার ভোটদানের সুযোগ পাবেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত