প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যানজট মুক্ত ঢাকা গড়তে চাই : আদম তমিজি

শাকিল আহমেদ : ব্যাস্ত নগরী ঢাকায় অনেক সমস্যা আছে এর মাঝে অন্যতম হলো জানযট। যদি কোথাও আগুন লাগে কিংবা দূর্ঘনা ঘটে যানজটের কারণে সেখানে সঠিক সময়ে গাড়ী পৌঁছাতে পারবে না। এতে বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। আর এর জন্য পুড়ো শহর অচল হয়ে যেতে পারে। তাই যানজট মুক্ত ঢাকা গড়ার কথা জানালেন হক গ্রুপ অব কোম্পানির কর্নধার ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে(ডিএনসিসির) মেয়র প্রার্থী আদম তমিজি হক।

আমাদের সময়.কমকে দেয়া সাক্ষাতকারে তিনি এসব কথা বলেন।

আদম তমিজি বলেন, লন্ডেনে রাজনীতির উপরে পড়ালেখা করেছি। তাই অনেক আগে থেকেই রাজনীতিতে আসার ইচ্ছা ছিলো কিন্তু রাজনীতিতে আগে সুস্থপরিবেশ ছিলো না, আমরা ব্যবসাই তাই বাবার অনিচ্ছা থাকায় আসতে পারিনি। বাবা গত বছর মারা গেছে তাছাড়া রাজনীতির পরিবেশও এখন অনেকটা ভালো তাই রাজনীতিতে এসেছি ঢাকাবাসীর সেবা করার জন্য। আগে থেকেই সরাসরি জড়িত না থাকলেও ভিতরে ভিতরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে ছিলাম।
বঙ্গবন্ধুর সাথে আমার বাবার ঘনিষ্ঠ সর্ম্পক্য ছিলো। আর আমিও ছোটবেলা থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী। তাই দলের মনোনয়ন নিয়ে ঢাকাবাসীর সেবা করতে চাই।

দল থেকে কোন গ্রিনসিগনাল পেয়েছেন কিনা জানতে চাইলে বলেন, এটা নিয়ে কথা বলতে চাই না। যেহেতু আমি পার্টি জন্য ভালো কাজ করে যাচ্ছি সেহেতু আমি ভালো কিছু আশা করতেই পাড়ি। গ্রিন সিঙ্গনাল আর মনোনয়ন এক না। যে কোন ব্যক্তি কাজ করতে চাইলে দল তাকে কাজ করতে বলবে। আমি সব জায়গায় গণসংযোগ করছি সবার মাঝে সাড়া পেয়েছি। মনোনয়ন নিয়ে আমি আশাবাদি। দলীয় কোন পদে আছেন? ঢাকা মহা নগর উত্তরের সাধারন সদস্য পদে আছি।

ঢাকা শহরে কাজ করতে চ্যালেঞ্জ আছে আর চ্যলেঞ্জ নিতেই আমার ভালো লাগে। এখানে অনেক সমস্যা আছে,কাজ করার সুযোগ আছে এখানে কাজ করতে অনেক ফাইট করতে হবে আর এগুলোই আমার কাছে ইন্টারেস্টিং। লন্ডন,সিঙ্গাপুরের মতো উন্নত শহরে কোন কাজ নেই সেখানে কাজের কোন মজাও নেই। আমি কাজ দিয়ে প্রমান করতে চাই আমার যোগ্যতা আছে।

কিভাবে যানজট নিরসন করবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, যানজট সমস্যা সমাধানে ব্যক্তিগত গাড়ী ব্যবহারের সংখ্যা কমাতে হবে। ব্যাক্তিগত গাড়ীর উপর ট্যাক্স ধার্য করতে হবে। যে রাস্তায় বেশি যানজট সেই রাস্তায় স্কুল চলা ও অফিস চলা কালিন সময়ে সকাল ৮ থেকে রাত ৮ পর্যন্ত কেউ গাড়ী বের করলে তাকে ট্যাক্স দিতে হবে এব্যবস্থা চালু হলে যার ৫ টা গাড়ী আছে সে একটা গাড়ী বের করবে আর এতে যানজট অনেক কমে আসবে। পাপাশি গণপরিবহন বাড়িয়ে এতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। নারীদের জন্য আলাদা বাস সার্ভিস,এসি বাস ইত্যাদি ব্যবস্থা করতে হবে। এগুলো খুব বেশি ব্যায় বহুল ও ঝামেলার কাজ না। পরিবহনের যে ট্যক্সের টাকা আসবে তা ডিএনসিসির অধিনে নিয়ে এই কাজ গুলো করা যাবে। সিঙ্গাপুর,ইংল্যান্ডে এ ব্যবস্থা চালু আছে। মেট্রো রেল হলে হয়তো বাসের ব্যবহার কমবে কিন্তু জানযট তো কমবেনা। বেশি ভাগ মানুষ পায়ে হেটে কিংবা রিক্সায় চলাফেরা করে এদের সমস্যার কথা ভাবতে হবে। আর এর জন্য যে কোন কঠিন পদক্ষেপ নিতে হবে। না হলে ঢাকা হাড়িয়ে যাবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত