প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাকা উত্তর মেয়র নির্বাচন দিয়ে সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে পরখ করছে বিএনপি : ফখরুল

ফারমিনা তাসলিম : বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তার দল মনে করছে জাতীয় নির্বাচন হচ্ছে ‘চেঞ্জ দা গভর্নমেন্ট’ আর স্থানীয় সরকারের নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে নির্বাচন সম্পর্কে নির্বাচন কমিশন ও সরকারের মনোভাব বুঝা যায়। তাই স্থানীয় নির্বাচন আর জাতীয় নির্বাচনকে এক করে দেখা যাবে না। তবে স্থানীয় নির্বাচনকেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অভিহিত করে ফখরুল বলেন, এ নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে আবার প্রমাণিত হবে এ সরকার সত্যিকার অর্থে কী করতে যাচ্ছে ? অতীতের নির্বাচনগুলোর মতো তারা আচরণ করবে কিনা। নির্বাচন কমিশন কতটুকু নিরপেক্ষতার সঙ্গে অবাধ নির্বাচন পরিচালনা করতে পারবে কিনা তা নির্বাচনের জন্য একটা লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে পারবে কিনা যদি ইতিমধ্যে আমাদের যথেষ্ট অসুবিধার মধ্যে পড়তে হচ্ছে এবং সব ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। আমাদের দলের চেয়ারপারসন থেকে শুরু করে সিনিয়র লিডারসহ সারাদেশের অনেকের মিথ্যা মামলার মোকাবিলা করতে হচ্ছে। তারপরেও আমরা গণতান্ত্রিক লেবেলগুলো আছে এর প্রত্যেকটিকে আমরা অংশ গ্রহণ করতে চাই।

বিবিসি বাংলার সাথে এক সাক্ষাতকারে ফখরুল আরো বলেন, বিএনপির স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যরা সর্বসম্মতিক্রমে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন উপ-নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে তাবিথ আউয়ালকেই বেছে নিয়েছেন। সকল প্রার্থীর চেয়ে তাকেই যোগ্য মনে করছে বিএনপি। অন্যান্য প্রার্থীরাও তার পক্ষে কাজ করার কথা বলেছে।

সোমবার রাতে ঢাকায় দলটির চেয়ারপারসন কার্যালয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাতকার শেষে বিএনপির পার্লামেন্টারি বোর্ডের বৈঠকে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়। দলটির বিভিন্ন পর্যায়ের পাঁচজন নেতা এর আগের দিন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। এদের মধ্যে তাবিথ আউয়াল গত সিটি নির্বাচনে প্রয়াত আনিসুল হকের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন। তবে ভোটের দিন তিনি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

কী বিবেচনায় তাবিথ আউয়ালকে বেছে নেয়া হলো দলের পক্ষ থেকে ?

এ প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গতবার আমাদের দলের সমর্থনে তাবিথ আউয়াল নির্বাচন করেছিলেন। তাকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয়ার পরেও সে প্রায় ৩ লাখ থেকে সাড়ে ৩ লাখ ভোট পেয়েছিল। তাবিথ আউয়াল শিক্ষিত ছেলে এবং গত নির্বাচনে তার যথেষ্ট অভিজ্ঞতা হয়েছিল। তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে আমরা মনে করি তাবিথ আউয়াল বর্তমান পরিস্থিতিতে সবচেয়ে ভালো প্রার্থী হবে। অন্যান্য যারা ছিলেন তারাও যোগ্য ছিলেন, কিন্তু অন্যান্যের তুলনায় তাকে বেশি যোগ্য মনে করেছি।

স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পরে বিষয়টি চূড়ান্ত হলো, মূল বিষয়ে কী সামনে রেখে আপনারা এ সিদ্ধান্তে পৌঁছলেন ?

জবাবে ফখরুল ইসলাম বলেন, যারা প্রার্থীর জন্য ফরম নিয়েছে তাদের আমরা ইন্টারভিউ নিয়েছি এবং সকলের কাছ থেকে আমরা জানতে চেয়েছি, তারা মেয়র পদের জন্য নিজের যোগ্যতা কিভাবে মনে করে ? মেয়র নির্বাচিত হলে তারা কী কী কাজ করবে ? সবার মতামতের ভিত্তির ওপরে আমাদের বোর্ডের সর্বসম্মতিক্রমে তাবিথ আউয়ালকে মনোনিত করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত