প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জ্যোতিষীদের দাগ কাটায় বিশ্বাস করা কুফরী

সাইদুর রহমান : ভালো মন্দের তাকদির একমাত্র আল্লাহর হাতে। আল্লাহ চাইলে কারো তাকদির পরিবর্তন করতে পারেন। কারো ক্ষমতা নেই অন্যের তাকদিরে হস্তক্ষেপ। এবং তাকদিরের নিশ্চিত জ্ঞান একমাত্র আল্লাহর হাতে। জ্যোতিষীরা অনুমান করে বিভিন্ন পদ্ধতিতে মানুষের শুভ-অশুভ সম্পর্কে ধারণা দেয়। এগুলোর কোনো সত্যাসত্যি নেই। এমনকি এগুলোর প্রতি বিশ্বাস করাকেও হাদীসে কুফরী বলা হয়েছে।

মাটিতে দাগকাটা এবং পাখীর ডাক ও উড়ার দ্বারা যাত্রা শুভ-অশুভ নির্ণয় করা সম্পর্কে হাদীসে এসেছে, হযরত কাবীসা (রহ.) তাঁর পিতা থেকে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে এরূপ বলতে শুনেছি যে, জ্যোতিষীদের মাটিতে দাগ কেটে যাত্রা শুভ-অশুভ নির্ধারণের কথায় বিশ্বাস করা, ভাল-মন্দ নির্ণয়ের জন্য লটারীর ব্যবস্থা করা, কুফরী রসমরিওয়াজের অন্তর্ভুক্ত। আবু দাউদ , হাদীস নং ৩৮৬৭

অন্য আরেক হাদীসে পাখির বিষয়ে এসেছে, আবদুল্লাহ ইবন মাসউদ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, একদা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তিনবার বলেন, পাখীর শুভাশুভ নির্ণয় করা শিরক। এ ব্যাপারে যদি কারো মনে সন্দেহের সৃষ্টি হয়, তবে তা মহান আল্লাহ তাঁর প্রতি তাওয়াককুলের কারণে দূর করে দেবেন। আবু দাউদ, হাদীস নং ৩৮৬৯.

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত