প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অপহরণের ১০দিন পর  শিশুর লাশ উদ্ধার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

তৌহিদুর রহমান নিটল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: অপহরণের ১০দিন পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের খড়িয়ালা থেকে শিশু রিফাতের বস্তা বন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ ৩ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে।

সোমবার সকালে উপজেলার খড়িয়ালা গ্রামের স্থানীয় ইউপি সদস্য মুমিন মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়ার বাসার বাথরুমের ফলস ছাদের ভিতর থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো বরগুনার পাথর ঘাটার সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে সোহাগ মিয়া (২৪), ঝালকাটির কাঠালিয়ার আনছার আলীর ছেলে সোলায়মান (২২), নোয়াখালীর নাবালক মিয়া ছেলে ইলিয়াস (৫৫) ।  রিফাত খড়িয়ালা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র। সে উপজেলা খড়িয়ালা গ্রামের বাহার মিয়ার ছেলে। গত ৫ জানুয়ারী অপহরণ হয়েছিল রিফাত।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানায়, ৫ জানুয়ারী দুপুর থেকে সে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পর রিফাতের বাবা পৃুলিশকে অবহিত করে। ২ দিন পর তার বাবার কাছে মোবাইলে ফোন করে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ চায় অপহরণকারীরা।

বিকাশের মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা পাঠায় রিফাতের বাবা। টাকা পাঠানোর সূত্র ধরেই একই গ্রামের সোহাগ, সোলায়মান , মিজান ও ইলিয়াস শিশুটিকে অপহরণ করেছে বলে পুলিশ নিশ্চিত হয়।

মোবাইলে কললিষ্ট ধরে সোহাগ, সোলায়মান ও ইসিলাসকে আটক করলে তাদের স্বীকারোক্তির মাধ্যমে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার করতে পারলেও আরেক অপহরণকারী মিজানকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বদরুল আলম তালুকদার জানান, অপহরণের পর রিফাতের বাবা বাহার মিয়া বাদি হয়ে আশুগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিল। জিজ্ঞাসাবাদে অপহরণের কয়েক ঘন্টার মাথায় রিফাতকে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে অপহরণকারীরা।

লাশ ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। সম্পাদনা: উমর ফারুক রকি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত