প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আইন অমান্য করে লক্ষীপুরে বাড়ছে অত্যাচার

লক্ষীপুর প্রতিনিধি : আইন অমান্য করে লক্ষীপুরের কথিত গ্রাম্য মাতব্বর, ফতোয়াবাজ ও জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে মানুষের প্রতি নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। আইনের সঠিক প্রয়োগ না হওয়ায় গ্রাম্য সালিশের নামে দরিদ্র মানুষ, সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধাদের ওপর অত্যাচার বেড়েই চলেছে।

গত চার মাসে লক্ষ্মীপুরে গ্রাম আদালতে ৪০টি নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে বাদ যাননি সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধাও। এমনকি ভুক্তভোগীদের মোটা অংকের অর্থ জরিমানা করা হয়। বেশিরভাগ ঘটনায় মামলার পরও আসামিরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকে। বরং মামলা করে বিপাকে পড়েছেন নির্যাতিতরা।

নির্যাতনের কথা অস্বীকার করে, জরিমানার অর্থ দিয়ে উন্নয়নমূলক কাজের কথা বলেছেন অভিযুক্তরা।

জড়িতদের গ্রেপ্তার দাবিতে বিক্ষোভ ও সমাবেশসহ নানা কর্মসূচি হলেও, সহজে ধরা পড়েন না কেউ। কিন্তু পুলিশ জানান, জড়িতদের ছাড় দেয়া হবে না।

গত জুন থেকে জুলাই মাসে মেহেরপুরে গ্রাম্য শালিসে তিনটি নির্যাতনের ঘটনা হয়। গ্রাম আদালতের নামে এসব করেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। এসব ঘটনায় দুটি মামলায় আসামি করা হয় ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যসহ ২৭ জনকে।

দু-একজন গ্রেপ্তার হলেও আদালত থেকে তারা জামিনে বেরিয়ে আসেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা মনে করেন যথাযথ প্রক্রিয়ায় মামলা না হওয়ায় আসামিরা ছাড়া পাচ্ছেন সহজেই।

প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিরা মনে করেন আইন সম্পর্কে অজ্ঞতার কারণে বাড়ছে এ ধরনের অপরাধ।

ক্ষমতার দাপট আর আইন না জানার কারণে গ্রাম আদালতের নামে নিরীহ মানুষকে নির্যাতন করছে প্রভাবশালীরা। এজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জোরালো ভূমিকা নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা। সূত্র – ইনডিপেনডেন্ট টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ