প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমার তারুণ্যের গর্ব ছাত্রফ্রন্ট নিয়ে মিশ্র-অনুভূতি!

মাসুদ রানা : ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারিতে প্রতিষ্ঠিত ছাত্রলীগের ঔপনিবেশিকতা-বিরোধী ও জাতীয়তাবাদী সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবী সংগ্রামের ঐতিহ্যকে সর্বোৎকৃষ্টভাবে ধারণ করেই যুগের নতুন প্রয়োজনে আদর্শগত উত্তরণের পথে আমরা ১৯৮৪ সালের ২১ জানুয়ারিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফন্ট নাম নিয়ে নতুন যাত্রা শুরু করি। আজ থেকে ৩৪ বছর আগের কথা!

আমরা যে ছাত্রফ্রন্ট প্রতিষ্ঠা করেছিলাম, তার মর্মকথা আমি নিজ হাতে মধুর কেন্টিনের কার্ণিশে রেড অক্সাইডের মধ্যে তুলি ডুবিয়ে লিখেছিলাম শিবদাস ঘোষের একটি দারুণ উক্তি, যা আমি পেয়েছিলাম শৈলেশ দে’র ‘ওরা আকাশে জাগাতো ঝড়’ বইতে। সেই উক্তিটি আমার এখনো মনে আছে :-

‘প্রকৃত যুবক আমরা তাকেই বলি, যার মর্যাদাবোধ আছে, লড়বার তেজ আছে এবং যে অন্যায়ের মোকাবেলা করার সাহস রাখে।’

আমরা এই মর্যাদাবোধেই আশির দশকে জেনারেল হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের সামরিক স্বৈরতন্ত্র ও অতঃপর তার অবৈধ নির্বাচনের সহযোগী বাকশাল-জামায়াতের দালালীর বিরুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ সংগ্রাম করেছি এবং অপরাজেয় থেকেছি।

আজ পুরনো সেই উক্তিটি মনে পড়ে গেলো এই সংবাদ শুনে যে, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের মিছিলে না যাওয়াতে ছাত্রফ্রন্টের এক সদস্যকে হল থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে, আর তার প্রতিবাদে প্রচ- শীতে গেইটের বাইরে বসে রাত কাটিয়েছে। সন্দেহ নেই, মেয়েটির মর্যাদাবোধ আছে, লড়বার তেজ আছে এবং অন্যায়ের মোকাবেলা করার সাহস আছে। সাবাস মেয়ে! সত্যিই, দারুণ!

ছাত্রফ্রন্টের প্রতিষ্ঠাতাদের একজন হিসেবে ছাত্রফ্রন্টের ঐ মেয়েটির মর্যাদাবোধ, তেজ ও সাহসে আমি গর্বিতবোধ করছি। কিন্তু সাথে-সাথে আমি লজ্জিতও বোধ করছি এই জন্যে যে, মেয়েটি যখন হল থেকে বহিষ্কৃত হয়ে গেইটের বাইরে রাত কাটালো, তখন তার প্রতিবাদে ছাত্রফ্রন্টের ছেলেদের লড়তে দেখলাম না!

ছাত্রফ্রন্টের ছেলেদের কি মর্যাদাবোধ নেই? লড়বার তেজ নেই? অন্যায়ের মোকাবেলা করার সাহস নেই? অথচ, ওরাই গত বছরের এপ্রিল মাসে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রফ্রন্টের অন্য গ্রুপের অফিসে গিয়ে তাদেরকে জোর করে বের করে দিয়েছিলো বা দিতে চেষ্টা করেছিল।

আসলে, আমার তারুণ্যের গর্ব ছাত্রফ্রন্ট নিয়ে আমি সঙ্কুচিত ও লজ্জিত হয়েছিলাম সেদিন প্রথম, যেদিন শুনেছিলাম এই ছাত্রফন্টের বিভক্তি পূর্বকালে নেতৃস্থানীয় কতিপয় সদস্য বাসদের ‘দলত্যাগী’ প্রাক্তন নেতা আব্দুল্লাহ সরকারের বাড়িতে চড়াও হয়ে তার পরিবারের একজনকে মারধর করেছিল!

আমি ভাবি উচ্চারিত ও প্রচারিত ‘আদর্শ’র ভিন্নতা সত্ত্বেও ছাত্রলীগের সাথে ছাত্রফ্রন্টের মৌলিক সাংস্কৃতিক পার্থক্য আছে কি? আমি, ‘মৌলিক’ শব্দটার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি।

লন্ডন, ইংল্যান্ড/ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ