প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অস্থিরতার দিকে রডের বাজার
এক সপ্তাহে দাম বেড়েছে টনে ৫ হাজার টাকা

ডেস্ক রিপোর্ট : দেশের বাজারে ছয় মাস ধরে ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে রডের দাম। তবে গত এক সপ্তাহে নির্মাণসামগ্রীটির দামে বড় উল্লম্ফন ঘটেছে। এক লাফে বিভিন্ন মানের এমএস রডের দাম বেড়েছে টনপ্রতি ৫ হাজার টাকা। আন্তর্জাতিক বাজারে রডের কাঁচামাল বিলেট ও স্ক্র্যাপের ক্রমাগত দাম বৃদ্ধির প্রভাবে দেশেও পণ্যটির বাজার অস্থির হয়ে উঠছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

রড উৎপাদন ও বিপণনকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত সপ্তাহ থেকে সব ধরনের ইস্পাতের দাম আরো এক দফা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে সাধারণ গ্রেডের এমএস রডের দাম। গতকাল মিল গেটে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের প্রতি টন সাধারণ গ্রেডের (৪০০ ওয়াট) এমএস রড বিক্রি হয়েছে ৪৭ থেকে ৪৮ হাজার টাকায়। যদিও গত সপ্তাহের শুরুর দিকে একই মানের রডের দাম ৪২ থেকে ৪৩ হাজার টাকার মধ্যে ছিল। সে হিসাবে এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি টন সাধারণ গ্রেডের রডের দাম ৫-৬ হাজার টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। এরও চার-পাঁচদিন আগে একই মানের প্রতি টন রড ৩৮ থেকে ৩৯ হাজার টাকায় বিক্রি হতো। খবর বণিক বার্তা’র।

দাম বৃদ্ধির কারণ হিসেবে রড উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানসংশ্লিষ্টরা জানান, আন্তর্জাতিক বাজারে কয়েক মাস ধরে পুরনো জাহাজ, স্ক্র্যাপ ও বিলেটের দাম বৃদ্ধির দিকে। এতে কারখানায় সাধারণ রড উৎপাদনের খরচ বেড়ে গেছে। এ কারণে দেশীয় বাজারে সাধারণ রডের দাম ঊর্ধ্বমুখী।

সাধারণ গ্রেডের রডের পাশাপাশি ৬০ গ্রেড (৫০০ ওয়াট) এমএস রডের দামও অস্বাভাবিক বেড়েছে। গতকাল মানভেদে মিল গেটে প্রতি টন ৬০ গ্রেডের রড বিক্রি হয়েছে ৫৬ থেকে ৫৭ হাজার টাকার মধ্যে, যার দাম গত সপ্তাহেও ছিল ৫৪-৫৫ হাজার টাকার মধ্যে। ছয় মাস আগে ৬০ গ্রেডের রড বিক্রি হতো প্রতি টন ৪৭ থেকে ৪৮ হাজার টাকায়। সে হিসাবে গত ছয় মাসে ৬০ গ্রেডের রডের দাম বেড়েছে টনপ্রতি প্রায় ১০ হাজার টাকা। আর গত এক সপ্তাহেই বেড়েছে প্রায় ৩ হাজার টাকা।

বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমানে ৬০ গ্রেডের প্রতি টন বিএসআরএম রড ৫৭ হাজার, কেএসআরএম ৫৬ হাজার, একেএস ৫৫ হাজার ৫০০ এবং আরএসআরএম, জিপিএইচ ও অন্যান্য ব্র্যান্ডের রড ৫৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে প্রতি টন বিএসআরএম রডের দাম ছিল ৫৫ হাজার টাকা। আর কেএসআরএম ৫৪ হাজার, একেএস ৫৩ হাজার ৫০০ এবং আরএসআরএম, জিপিএইচ ও অন্যান্য ব্র্যান্ডের রড ৫৩ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে।

বণিক বার্তার প্রতিবেদনে চট্টগ্রামে রডের পাইকারি বাজার আসাদগঞ্জের মেসার্স জামান এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী এসএম কামরুজ্জামান বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বৃদ্ধির পাশাপাশি সংকটের কারণে মিলগুলোয়ও গত কয়েকদিনে রডের দাম আরো বাড়ছে। সরবরাহ সংকটের সুযোগে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো সিন্ডিকেট করে পণ্যটির দাম বাড়াচ্ছে বলেও মনে করছেন এ ব্যবসায়ী।

একই কথা বলেন বাংলাদেশ অটো-রিরোলিং অ্যান্ড স্টিল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মানোয়ার হোসেনও। তিনি বলেন, বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারে রডের দাম বৃদ্ধির পাশাপাশি দেশেও মৌসুমের শেষের দিকে নির্মাণকাজে গতি বেড়ে গেছে। এতে বেড়েছে রডের চাহিদা। ফলে গত কয়েকদিনে দেশব্যাপী রডের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

জানা যায়, ছয় মাস আগে সাধারণ গ্রেডের রড তৈরির কাঁচামাল প্রতি টন প্লেট ২৮ থেকে ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি হতো। কিন্তু এখন প্রতি টনে প্রায় ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা দাম বেড়ে একই মানের প্লেট বিক্রি হচ্ছে ৩৮ থেকে ৩৯ হাজার টাকায়। একইভাবে ৬০ গ্রেডের কাঁচামাল বিলেটের দামও টনপ্রতি ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত