প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বারবার কেন ‘রুবি ভিলায়’ আস্তানা গড়ার অপচেষ্টা

ডেস্ক রিপোর্ট : রাজধানীর পশ্চিম নাখালপাড়ার ‘রুবি ভিলা’ নামক ‘জঙ্গি আস্তানায়’ আগেও তিনবার অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েক জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছিল র‌্যাব ও পুলিশ। বাড়িটিতে সবশেষ শুক্রবার ভোরে র‌্যাবের অভিযানে নিহত হয় নব্য জেএমবির তিন তরুণ ‘জঙ্গি’। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ১০০ গজের মতো পেছনে ‘রুবি ভিলার’ অবস্থান। তাছাড়া ঘটনাস্থলটি এমপি হোস্টেলেরও পেছনে।

এমন একটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর স্থানে বারবার কেন জঙ্গিরা ঘাঁটি গড়ার চেষ্টা চলাচ্ছে- তা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখছে র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক ইউনিট। তাছাড়া ওই জঙ্গি আস্তানায় নিহত তিন ‘জঙ্গির’ সহযোগীদের খোঁজে মাঠে নেমেছে র‌্যাব। তাদের ব্যাপারে তথ্য পেতে বাড়ির মালিক, কেয়ারটেকার ও মেস ম্যানেজারকে টানা জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে র‌্যাব সূত্র জানায়।

অপরদিকে পশ্চিম নাখালপাড়ার ‘রুবি ভিলায়’ শুক্রবার ভোরে র‌্যাবের অভিযানকালে তিন জঙ্গি নিহত হওয়ার ঘটনায় সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা হয়েছে। গতকাল শনিবার রাতে এক র‌্যাব সদস্য বাদী হয়ে তেজগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান র?্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমরানুল হাসান। এদিকে গুলির আঘাতেই ওই তিন জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান অধ্যাপক এ এম সেলিম রেজা। অভিযানে নিহত জঙ্গিদের ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল শেষ বিকেলে এ কথা জানান ওই চিকিৎসক। এদিকে নিহতদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন র‌্যাব কর্মকর্তারা।
জানতে চাইলে র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমরানুল হাসান বলেন, পশ্চিম নাখালপাড়ার ‘রুবি ভিলা’ নামক ভবনটিতে ২০১৩, ২০১৬ ও ২০১৭ সালে অভিযান চালিয়ে কয়েক জঙ্গি গ্রেফতার করেছিল র‌্যাব। এবার ফের অভিযান চালানো হলো। তাছাড়া থানা পুলিশও সেখানে অভিযান চালিয়েছিল। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মনে প্রশ্ন উঠেছে, এতো অভিযানের পরও কেন বারবার ওই বাড়িটিতেই জঙ্গিরা আস্তানা গড়ে তোলার চেষ্টা চালাচ্ছে?

এই র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, যেহেতু প্রধামন্ত্রী ও এমপিদের সরকারি বাসভবনের পেছনে রুবি ভিলার অবস্থান, তাই এটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর জায়গা। এই বিষয়টিকে মাথায় রেখে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে নেপথ্যের কাহিনী খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে র‌্যাব। র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক বলেন, আমরা গোয়েন্দা তথ্যে জানতে পেরেছি, বাড়িটির পঞ্চমতলার তিন জঙ্গির কাছে তাদের সহযোগীদের যাতায়াত ছিল। এর বাইরেও কাদের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ ছিল, তাদের খুুঁজে বের করতে মাঠে নেমেছে র‌্যাবের একাধিক টিম।

এক প্রশ্নের জবাবে লে. কর্নেল ইমরানুল হাসান বলেন, প্রাথমিক তদন্তে ও গোয়েন্দা অনুসন্ধানে ইতোমধ্যে বেরিয়ে এসেছে, রুবি ভিলায় ভাড়াটিয়া ভাড়া দেয়ার ক্ষেত্রে চরম অব্যবস্থাপনা রয়েছে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না দেখে ও প্রকৃত তথ্য না জেনেই সেখানে ভাড়া দেয়া হয়। তিনি বলেন, এ জন্য বাড়িটির মালিক সাবেক বিমানবাহিনী কর্মকর্তা সাব্বির হোসেন, কেয়ারটেকার রুবেল ও মেস ম্যানেজার শীতলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে গতকাল পর্যন্ত তাদের বিরুদ্ধে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ মেলেনি।

নাখালপাড়ার রুবি ভিলার পঞ্চম তলার যে ফ্লাটটিতে তিন জঙ্গি আশ্রয় নিয়েছিল, এর বর্ণনা দিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তা ইমরান বলেন, সেখানে তিনটি কক্ষে মোট সাতজন থাকত। এর মধ্যে একটি কক্ষে অভিযানে নিহত হয় তিন জঙ্গি। আর বাকি দুটি কক্ষে দু’জন করে চারজন ছাত্র ও চাকরিজীবী থাকেন। তাই জঙ্গিদের ফ্ল্যাটে একত্রে থাকা ছাত্র ও চাকরিজীবীদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে র‌্যাব। তবে তাদের কোনো সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়নি।

সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা: রাজধানীর পশ্চিম নাখালপাড়ায় জঙ্গি আস্তানায় শুক্রবার অভিযান চালায় র‌্যাব। এতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির তিন সদস্য নিহত হয়। এ ঘটনায় গতকাল রাতে তেজগাঁও থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে একটি মামলা করেছে র‌্যাব। সংস্থাটির আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক ও মুখপাত্র কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, এতে নিহত জঙ্গিসহ অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়েছে। নিহত তিনজনের নাম পরিচয়ের বিষয়ে জানতে চাইলে মুফতি মাহমুদ খান বলেন, তিনজনের নাম পরিচয় সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ নিয়ে র?্যাবের কাজ চলছে।

গুলিতেই তিন ‘জঙ্গির’ মৃত্যু- চিকিৎসক: গুলির আঘাতেই নাখালপাড়ার রুবি ভিলার তিন ‘জঙ্গির’ মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান অধ্যাপক এ এম সেলিম রেজা। গতকাল বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে এই চিকিৎসক গণমাধ্যমকে জানান, আমরা তেজগাঁও থানা থেকে পাঠানো তিনটি লাশ পেয়েছি। তিন জনের শরীরেই বুলেটের চিহ্ন আছে। গুলিতেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে সুরতহাল প্রতিবেদন যে আঘাতের কথা উল্লেখ করা হয়েছে, আমরা সেই আঘাতগুলো পেয়েছি। একজনের শরীরে একটি বুলেট পাওয়া গেছে। তাদের প্রত্যেকের শরীরে অনেকগুলো আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শরীরের সামনে ও পেছনের দিকে এসব আঘাত রয়েছে। এর আগে, শুক্রবার লাশ তিনটির সুরতহাল করে তেজগাঁও থানা পুলিশ। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য লাশ তিনটি সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। মানবকণ্ঠ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত