প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গভীর রাতে শীতার্ত মানুষের পাশে সুপ্রভাত ফাউন্ডেশন

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর অসহায় দরিদ্র শীতার্ত মানুষের শীত নিবারনের লক্ষে সুপ্রভাত ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে শুক্রবার দিবাগত রাতে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। সুপ্রভাত ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ফাউন্ডেশনের সভাপতি সিফাত আরা ও সাধারণ সম্পাদক ইসমাঈল সিরাজী। শীতবস্ত্র বিতরণে আরও উপস্থিত ছিলেন, প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজালাল রোহান, সাংগঠনিক সম্পাদক শিমুল রহমান, অর্থ সম্পাদক তান্নি ইসলাম খুকি, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মাহমুদুল হাসানসহ সংগঠনের সদস্যবৃন্দ।

টিএসসি চত্ত্বর থেকে শুরু করে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে রাস্তার পাশে বসবাসরত অসহায় ও ছিন্নমূল মানুষদের মাঝে এই শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে।
গত কয়েকদিনের অতিরিক্ত শীতের কবলে পড়েছে সারাদেশের মানুষ। দরিদ্র মানুষেরা শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচতে অসহায় হয়ে পড়েছে। সহায় সম্বলহীন মানুষেরা প্রচন্ড শীতে খুব কষ্টের মধ্যে দিয়ে জীবন অতিবাহিত করছে।

শীতার্ত ঐ মানুষগুলো কিন্তু তখনো আমাদের অপেক্ষায় আছে। আশায় আছে শহরের এই মানুষগুলো নিশ্চয় তাদের পাশে এসে দাঁড়াবে। যেই মানুষগুলো ঠিক মত দুই বেলা খাবার জোগাড় করতে পারে না, শীতবস্ত্র কেনার মত যাদের সামর্থ্য নেই, তাদের পাশে নিশ্চয় আমরা এসে দাঁড়াবো। আর এই দিকে আমরা নিশ্চুপ বসে দেখে যাচ্ছি তাদের এই দূর্ভোগ।

ফাউন্ডেশনের সভাপতি সিফাত আরা বলেন, শীতে ছিন্নমূল ও দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দ্বায়িত্ব। যেখানে আমরা চার দেয়ালের মধ্যে ১-২ টা কম্বল/লেপ দিয়ে শীত নিবারন করি, সেখানে এই হাড় কাঁপানো শীতে অনেকেই অনেক কষ্টেশীত নিবারন করছে। আজ গভীর রাতে এরকম হতদরিদ্র ছিন্নমূল বিভিন্নজনকে আমার ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র দেয়া হয়েছে। আমাদের একটু সহযোগীতাই তাদের মুখে হাসি ফুটাতে পারে।

এসময় সাধারণ সম্পাদক ইসমাঈল সিরাজী বলেন, সুপ্রভাত ফাউন্ডেশন ছোট ছোট ভাল কাজের পাশাপাশি অসহায় মানুষদের কল্যানে ও আত্মমানবতার সেবাই কাজ করে। তারই ধারাবাহিকতায় দুঃস্থ মানুষদেরকে শীতের প্রকোপ থেকে কিছুটা বাচাঁতে শীতবস্ত্র বিতরন করা হচ্ছে । তিনি সমাজের সকল শ্রেণী পেশার মানুষদেরকে অসহায় মানুষের কল্যানে কাজ করার আহবান জানান।

এদিকে, প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজালাল রোহান বলেন, চেষ্টা করেছি ছিন্নমূল মানুষের পাশে দাঁড়াতে। যাতে এই তীব্র শীতের মাঝে একজন মানুষ অন্তত একটু ভালো থাকতে পারে। এটি খুব সামান্য একটি বিষয়। যার যার সাধ্যমতো এসব মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত। আর এই নৈতিক দায়িত্বটা সবাইকে জানিয়ে পালন করার মধ্যে কোনো কৃতিত্ব নেই। তাই গভীর রাতে মানুষগুলোর পাশে দাঁড়িয়েছি।

তীব্র শীতে জবুথবু বৃদ্ধ মন্টু মিয়া বলেন, গত কয়েকদিনের শীতে ভালোভাবে ঘুমাতে পারিনি। ভিক্ষার টাকা জমিয়ে একটি কম্বল কিনতে চেয়েছিলাম। কিন্তু টাকার জোগার না হওয়ায় তার আর কেনা হয়নি। তাই এই চাদরটি পেচিয়েই ঘুমিয়েছি। কিন্তু এই মানুষটির দেয়া কম্বল আমাকে শীতের হাত থেকে বাঁচিয়ে দিল।

এ অবস্থায় জরুরি ভিত্তিতে শীতবস্ত্রসহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। শুধু সরকার নয় রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনকেও এ ব্যাপারে এগিয়ে আসতে হবে। এ অবস্থায় আমাদের শীতার্তমানুষের পাশে দাঁড়ানোর বিকল্প নেই।

সুপ্রভাত ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে রাজধানীতে আরও কম্বল বিতরণ করা হবে। আপনিও পারেন আমাদের মাধ্যমে দুঃস্থ শীতার্ত মানুষদের সাহায্য করতে। এগিয়ে আসুন মানবতার খাতিরে শীতার্ত মানুষদের সাহায্যার্থে।

আমরা আপনার দেয়া সাহায্য দিয়ে আমরা নিজেরাই শীতবস্ত্র কিনবো এবং তা সরাসরি হতদরিদ্র মানুষ, যাদের শীতের কাপড় নেই তাদের কাছে পৌঁছে দেব। যেকোনো ভাবেই সাহায্য করতে চান আপনি আমাদের পেইজ এর ওয়াল এ পোস্ট করেজানাবেন, আমরাই আপনার সাথে যোগাযোগ করবো।

ফেসবুকে সুপ্রভাত ফাউন্ডেশন : https://www.facebook.com/Suprobhatfoundation/

* সরাসরি যেকোনো প্রকারের তথ্য / যোগাযোগের জন্যঃ-

শিমুল রহমান : 01722205873

বিকাশ করতে পারেন এই নম্বরে 01722205873, 01750501833 (Personal)

ডাচ মোবাইল ব্যাংক: 016800137206 (Personal)

ব্যাংকে জমা দিতে (Eastern bank Ltd.): 4520176738964700

(বিকাশ করার পর ফোন করে সাহায্যের পরিমান ও প্রাপ্তি নিশ্চিত করুন)

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত