Skip to main content

ত্রিদেশীয় সিরিজেই আমার অপূর্ণতা ঘোচাতে চাই: সাব্বির

স্পোর্টস ডেস্ক: এখনও তিনি সিনিয়র ক্রিকেটাদের দলে পড়েন না অবশ্যই। তবে নবীনদের দলেও ফেলা যাবে না। আগামী মাসেই আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের বয়স চার বছর পূর্ণ হবে। এই জগতে অনেকটুকুই বিচরণ করে ফেলেছেন সাব্বির রহমান। হতাশা যেমন আছে, আছে কিছু সাফল্যও। তিন সংস্করণ মিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৮৯টি ম্যাচ খেলে ফেলেছেন। এখনও পাননি তিন অঙ্কের স্বাদ। এই আক্ষেপ পোড়ায় সাব্বিরকেও। শনিবার মিরপুরে অনুশীলন শেষে জানালেন, আসছে ত্রিদেশীয় সিরিজেই চান এই অপূর্ণতা ঘোচাতে। “আপনারা যেমন হতাশ, আমিও আসলে এটা নিয়েই হতাশ সে সেঞ্চুরি করতে পারিনি। চেষ্টা করছি সেঞ্চুরির। আশা করছি, দ্রুতই সেঞ্চুরি করতে পারব। এই সিরিজে নিজের খেলাটা খেলতে পারব। চাইব আগ্রাসী থেকে নিজের খেলাটা খেলতে। তার শট খেলার সামর্থ্য নিয়ে সংশয় নেই। অনেকের মতে, বড় ইনিংস খেলতে না পারার কারণ সাব্বিরের টেম্পারামেন্টের ঘাটতি। যদিও সাব্বির সেটিকে সমস্যা মনে করছেন না। “এটা টেম্পারেমেন্টের ব্যাপার না। আমার খেলাই আসলে এমন। আগে যখন তিন নম্বরে খেলতাম, তখন ব্যাপারটা অন্য রকম ছিল। এখন ছয়-সাত বা পাঁচ-ছয়ে খেলব। আমি যখন যেখানে খেলার সুযোগ পাব, চেষ্টা করব পরিস্থিতি অনুযায়ী খেলার। এখন আমি চিন্তা করছি, কখন কিভাবে খেলা উচিত তা নিয়ে। যদি উইকেটে থাকি, ম্যাচ শেষ করব।” ক্যারিয়ারে পারফর্ম করে যতটা খবর হয়েছেন, তার চেয়ে বেশি খবরের শিরোনাম হয়েছে বিতর্কের জন্ম দিয়ে। কিছু দিন আগে হজম করতে হয়েছে এত বড় শাস্তি, বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসেই যেটির তুলনীয় কিছু নেই। তবে সেসব অধ্যায় পেছনে ফেলে সামনে তাকাচ্ছেন সাব্বির। জানালেন ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য তিনি প্রস্তুত। কাজ করেছেন নিজের ব্যাটিংয়ের কিছু দুর্বলতা সারাতে। “ব্যক্তিগতভাবে আমি ভালোভাবেই প্রস্তুত। যদিও গত কয়েকটা ম্যাচ আমার খারাপ গেছে। চেষ্টা করেছি, আমার যেটা দুর্বল জায়গা, সেটা শক্ত করার জন্য। ওটা নিয়ে কাজ করেছি। এখন দেখা যাক, সামনে ম্যাচ আসছে। ভালো করার চেষ্টা করব।” “স্পিন খেলা নিয়ে কাজ করেছি। ফ্রন্ট ফুট নিয়ে কাজ করেছি। নেটে একা এগুলো নিয়ে কাজ করেছি। যে দুর্বলতা ছিলো, তা সারিয়ে ওঠার করার চেষ্টা করেছি। ম্যাচে রান পাওয়া আসলে কপালের ব্যাপার। রান না পেলেই টেকনিক ভালো না, রান করলে ভালো; ব্যাপারটা সেরকম নয়। আমি চেষ্টা করছি, দুর্বলতাগুলো যেন ফিরে না আসে।” বিডিনিউজ