প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন লিগে বিতর্কে ‘প্লেয়ার বাই চয়েজ’

স্পোর্টস ডেস্ক: গত কিছুদিন ধরে দেশের ক্রিকেট অঙ্গনে আলোচনা চলছে ‘প্লেয়ার বাই চয়েজ’ নিয়ে। ‘প্লেয়ার বাই চয়েজ’ হচ্ছে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের বর্তমান খেলোয়াড় বাছাই পদ্ধতি।

দেশের ক্রিকেটারদের রুটি-রুজির যোগান খ্যাত ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন লিগে (ডিপিএলে) অতীতে অবশ্য এই পদ্ধতি ছিল না। ২০১২-১৩ মৌসুমে হুট করেই সিসিডিএম জানায়, ডিপিএলের খেলোয়াড় বাছাই হবে ‘প্লেয়ার বাই চয়েজ’ পদ্ধতিতে। অর্থাৎ- বেঁধে দেওয়া থাকবে খেলোয়াড়দের মূল্য এবং সেই দামেই তাকে দলভুক্ত করবে ক্লাব।

সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটারদের ক্ষোভের মুখে গত মৌসুমে বিতর্কিত এই নিয়ম তুলে নিতে বাধ্য হয় সিসিডিএম। কিন্তু আসন্ন মৌসুমে আবারও সেই পুরনো প্রথা ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

বিতর্কিত এই সিদ্ধান্তে মূলত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ক্রিকেটাররা। উন্মুক্ত পদ্ধতিতে ক্রিকেটাররা ক্লাবের সাথে কথা বলে নিজেদের দাম নির্ধারণ করতেন। কিন্তু ‘প্লেয়ার বাই চয়েজ’ পদ্ধতিতে আগে থেকেই নির্দিষ্ট দাম নির্ধারণ করে দেওয়ায় সেই সুযোগ পাচ্ছেন না ক্রিকেটাররা।

সিসিডিএমের চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ বলেন, ‘আমরা দল বদল পদ্ধতি হিসেবে প্লেয়ার বাই চয়েজকে স্থায়ী করা যায় কিনা তা নিয়ে বিবেচনা করবো। এ নিয়ে আমরা বোর্ডের সঙ্গে কথা বলবো, আলোচনা করে দেখবো। আমার মনে হয় বার বার পরিবর্তন না করে একটি পদ্ধতি হলে বেশ ভালো হয়।’

প্লেয়ারদের অভ্যন্তরীণ গুঞ্জন থেকে জানা যায়, কোন এক প্লেয়ার আকাশচুম্বী দাম চেয়ে বসার কারণেই নাকি ‘প্লেয়ার বাই চয়েজ’ সিস্টেমে ফিরেছে কর্তৃপক্ষ। তাদের তথ্য মতে, ঐ ক্রিকেটার চলতি আসরের জন্য নিজের মূল্য চেয়েছিলেন ৬০ লক্ষ টাকা! যদিও শেষমেশ তাকে ২৫ লক্ষ্য টাকা মূল্য বেঁধে দিয়েছে বোর্ড।

উল্লেখ্য যে, ‘আইকন’ গ্রেডে ১২ ক্রিকেটারের মধ্যে পাঁচজন পারিশ্রমিক পাবেন ৩৫ লাখ টাকা করে। ২৫ লাখ টাকা করে পাবেন ঐ গ্রেডের বাকি সাতজন ক্রিকেটার। বিডিক্রিটাইম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত