প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভালুকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১,আহত ২০

আবুল বাশার শেখ, ভালুকা (ময়মনসিংহ): ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভালুকা উপজেলার মেহরাবাড়ি নামকস্থানে গতকাল শনিবার সকালে ঘন কুয়াশার কারণে ৬ গাড়ি পর্যায়ক্রমে দুর্ঘটনা ঘটলে ঘটনাস্থলেই অজ্ঞাত নামা এক পূরুষ(২৫) নিহত হয় ও কমপক্ষে ২০জন আহত হন।

ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘটনার সময় বালু ভর্তি ঢাকাগামী একটি ট্রাক ঘন কুয়াশার মাঝে মহা-সড়কের মাঝখানে দাড় করায়। নেত্রককোণা থেকে ছেড়ে আসা ইকরা পরিবহণের একটি বাস ট্রাকের পিছনে ধাক্কা লেগে ধুমড়ে মুচড়ে যায়, এ সময় পিছনে থেকে নম্বর বিহীন একটি মটর সাইকেল এসে বাসের পেছনে ধাক্কা লাগে রাস্তার পাশে খাদে ছিটকে পড়ে যায়।

পর্যায়ক্রমে ঢাকাগামী অপর একটি মাইক্রোবাস মহা সড়কে এ দুর্ঘটনা দেখে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায় এর পাশাপাশি অপর একটি শ্রমিকবাহী বাসও মাইক্রোবাসটিকে পেছনে গিয়ে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে মাইক্রোবাটি ধুমড়ে মুচড়ে যায় সবশেষে একটি অজ্ঞাত প্রাইভেটকার দাড়ানো বাসের সাথে ধাক্কা লেগে ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

খবর পেয়ে ভালুকা ফায়ার সার্ভিস, ভরাডোবা হাইওয়ে ও ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত ও আহতদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। স্থানীয়রা ধারণা করছেন নিহত ব্যক্তি মটর সাইকেল আরোহী।

আহত ৪জনের পরিচয় পাওয়া গেছে তাঁরা হলেন, ময়মনসিংহে ত্রিশাল উপজেলার নিজবাখাইল গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে খোকন(৪০), ওই উপজেলার রায়মনি গ্রামের শামসুদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম(৪০), ফুলবাড়িয়া উপজেলার আছিম গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে আব্দুল মজিদ(৩৫) ও ময়মনসিংহ সদরের জালাল উদ্দিনের ছেলে আব্দুস ছালাম (৩৫)। আহত ৪জনের অবস্থা আশংকাজনক থাকায় তাঁদেরকে ভালুকা হাসপাতাল থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ভালুকা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার রাকিবুল হাসান জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করি এবং আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করি।

ভরাডোবা হাইওয়ে ফাড়ি পুলিশের ইনচার্জ এস,আই আব্দুস ছালাম জানান, ঘন কুয়াশার কারনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ভালুকা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার রুবেল হোসেন জানান, আমাদের এখানে ৪জনকে আনা হয়েছে তাদের সবার অবস্থায় আশংকাজনক। সম্পাদনা: মাহফুজ উদ্দিন খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ