প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কাতারের কাছে ভবন বিক্রি করে নতুন ঠিকানায় ব্রিটেনের মার্কিন দূতাবাস

The new US Embassy is pictured in Embassy Gardens in south-west London, on December 18, 2017. The new US Embassy is expected to cost around one billion US dollars and is due to open in January 2018. / AFP PHOTO / Justin TALLIS (Photo credit should read JUSTIN TALLIS/AFP/Getty Images)

আনন্দ মোস্তফা: গত বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইটে যুক্তরাজ্যে অবস্থিত নতুন মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন পরিকল্পনা বাতিল করে দেন। তিনি বলেন, পুরাতন ভবনটি বিক্রি করে অপেক্ষাকৃত অনগ্রসর এলাকায় নতুন ভবন করাটা একটি বাজে সিদ্ধান্ত ছিল। যদিও বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাজ্যে প্রত্যাশিত সংবর্ধনা না পাবার আশংকায় শহরটি বাতিল করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

১২তলা স্বচ্ছ কাঁচে ঘেরা নতুন মার্কিন দূতাবাসটি ১৬ জানুয়ারি উদ্বোধন করবেন মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী রেক্স টিলারসন। ভবনটির স্থাপত্য কৌশল ও নান্দনিকতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

যুক্তরাজ্যে পুরাতন মার্কিন দূতাবাসটি ছিল লন্ডনের সবচেয়ে অভিজাত এলাকা মেফেয়ারের একটি ঐতিহাসিক স্কয়ারে। ১৯৩৮ সাল থেকে দূতাবাসটি এই অঞ্চলে রয়েছে যা ‘লিটল আমেরিকা’ নামে লন্ডনবাসীর কাছের পরিচিত। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জেনারেল ডুয়াইট আইসেনহাওয়ার দূতাবাসটিকে মার্কিন সামরিক হেড কোয়ার্টার হিসেবে ব্যবহার করেন। আইসেনহাওয়ার পরবর্তীতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হন।

২০০৮ সালে জর্জ ডব্লিউ বুশ প্রেসিডেন্ট থাকাকালে দক্ষিণ পশ্চিম লন্ডনে টেমস নদীর তীরবর্তী একটি এলাকায় জমি কিনে ১২তলা নতুন একটি দূতাবাস ভবন করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। এর নির্মাণ ব্যায় ধরা হয় ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার যার নির্মাণ ব্যয় আসবে লন্ডনে যুক্তরাষ্টের অন্যান্য সম্পদ বিক্রির টাকায়।

২০০৯ সালে মেফেয়ারের বর্তমান দূতাবাসটিকে লন্ডন সিটি কর্পোরেশন ‘গ্রেড ২’ তালিকাভুক্ত করে এবং অভিজাত এলাকাটির অন্যান্য ভবনের সাথে সামঞ্জস্য রাখার জন্য সংস্কার করার সুপারিশ করে। এর পরই মূলত দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

পরবর্তীতে কাতারের বিনোয়োগকারী সংস্থা ‘কাতারি ডাইর’ ৫ তারকা হোটেল নির্মাণের জন্য ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে ঐতিহাসিক মার্কিন দূতাবাস ভবনটি কিনে নেয়। রাউটার্স, সিএনএন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ