প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মৃত দুই ব্যক্তিকে নিয়ে বনানী থানা আ.লীগের কমিটি!

বিপ্লব বিশ্বাস: এবার ঢাকা মহানগর উত্তর এর আওয়ামীলীগের বনানী থানার কমিটিতে স্থান পেলো মৃত দুই ব্যক্তি। পাশাপাশি শীর্ষ সন্ত্রাসীর সেকেন্ড ইন কমান্ড এবং মন্ত্রীর এপিএসসহ বিদেশে অবস্থানকারীরাও এ কমিটিতে স্থান পেয়েছে। এ নিয়ে বনানী থানা আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, গত ২৭ ডিসেম্বর ঢাকা ১৭ আসনের সমন্বয়কারী কমিটির প্রধান এম আব্দুল কাদের খান যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ঢাকা মহানগর উত্তর, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.ওয়াকিল উদ্দিন সদস্য জাতীয় কমিটি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগসহ আরো ৬ নেতার স্বাক্ষরিত বনানী থানা আওয়ামীলীগের ৭১ সদস্যের একটি কমিটি দেয়া হয়।

এই কমিটির উপদেষ্টা কমিটির ২ নম্বর উপদেষ্টা করা হয় আব্দুল মাজেদকে। অথচ তিনি গত ২১ অক্টোবর মারা যান। এ ছাড়া সাবেক দপ্তর সম্পাদক, ২০ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ অক্তারুজ্জামান ফরিদকে করা হয় ৫১ নং সদস্য। অথচ তিনিও মারা যান গত ১১ নভেম্বর। তিনি দীর্ঘদিন ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত ছিলেন। মারা যাওয়ার পর তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়। মারা যাওয়ার পর এই কমিটিতে যারা স্থান পেয়েছেন তারা অনেকেই সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে, তিতুমীর কলেজের ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মেহেদি হাসান ইমাম সিকদার দীর্ঘ একযুগ ধরে আমেরিকায় অবস্থান করছেন। তাকে দেয়া হয়েছে তিন নম্বর যুগ্মসাধারণ সম্পাদক। এছাড়া তার বিরুদ্ধে রয়েছে ব্যাপক অভিযোগ। তিনি গ্রেনেড হামলা মামলার অন্যতম আসামী এবং তালিকাভূক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী মুকুল ওরফে জামাই মুকুলের সেকেন্ড ইন কমান্ড। এ ছাড়া এই কমিটির সাধারণ সম্পাদক মীর মোশারফ হোসেন।

এর আগে তিনি গুলশান থানা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। পাশপাশি বর্তমানে তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রীর এপিএস। এ ব্যাপারে মোশারফ হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়। তার সেল ফোনে তিনবার ফোন করা হয়। তিনি প্রতিবারাই ফোন কেটে দেন। এরপর সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে এসএমএস করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ