প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বছরের ‘বাম্পারফ্লপ’ সিনেমা ‘খাস জমিন’

জাহাঙ্গীর বিপ্লব: শেষ হয়ে গেল আরও একটি কর্মচঞ্চল বছর। বছর শেষে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসাব। কিন্তু দেশীয় চলচ্চিত্রশিল্পে যেন প্রাপ্তির চেয়ে অপ্রাপ্তিই বেশি ছিল। হাতে গোনা দু’চারটা ছাড়া কোনো সিনেমাই আলোর মুখ দেখতে পারেনি। বরং উল্টা মুখ থুবড়ে পড়ে পথে বসিয়েছে সিনেমার লগ্নিকারকদের। এবছর প্রায় ৬০টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। তারমধ্যে ব্যবসায়িক দিক দিয়ে সবচেয়ে শীর্ষে ছিল যৌথ প্রযোজনার সিনেমা ‘নবাব’। তারপরেই অবস্থান করছে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ সিনেমা। এই দুই সিনেমা ছাড়া কোনো সিনেমাকেই ‘সুপারহিট’ বলতে নারাজ চলচ্চিত্রবোদ্ধারা।

আর বছরের সবচেয়ে ফ্লপ সিনেমা কোনটি- এ প্রশ্নের উত্তর দিতে যেন হিসাব নিকাশের প্রযোজন পড়বে না। কোনোরকম চিন্তা-ভাবনা ছাড়াই মুখ ফসকে বের হয়ে আসবে ‘খাস জমিন’ সিনেমার নাম। চলচ্চিত্রপাড়ার বামিন্দারা ‘খাস জমিন’কে বছরের ‘বাম্পার ফ্লপ’ সিনেমা হিসেবে মন্তব্য করছেন। সরোয়ার হোসেন পরিচালিত এ সিনেমায় প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাইমন সাদিক ও বিপাশা কবির। গত ১০ নভেম্বর মুক্তি পাওয়া এই সিনেমাটি সারাদেশের ৩১টি সিনেমা হলে একযোগে প্রদর্শিত হয়। কিন্তু দর্শক শূণ্যতার কারণে মুক্তির দ্বিতীয় দিনেই অনেক সিনেমাহল থেকে সরিয়ে ফেলা হয় সিনেমাটি। জানা গেছে, ৫৫-৬০ লাখ টাকার ‘খাস জমিন’ ঘরে এনেছে মাত্র ৮৫-৯০ হাজার টাকা। যদিও সিনেমাটির পরিচালকের দাবি, খাস জমিনের নির্মাণ ব্যয় ৭০ লাখ টাকা, আর আয় করেছে ১ লাখ টাকা।

কিন্তু কেন এই ভরাডুবি, বিপর্যয়? এ বিষয়ে সিনেমা মুক্তির পর সাংবাদিকদের কাছে আক্ষেপ প্রকাশ করে সিনেমার নায়ক সাইমন সাদিক বলেছিলেন, ‘আফসোস, মৌলিক গল্পের সিনেমা হলেও সিনেমাটি তেমন কোনো প্রচারণায় আসেনি। মিডিয়া যদি এটা নিয়ে ভালভাবে প্রচারণা চালাতো, তাহলে হয়তো এতটা নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হতো না।

সিনেমাটির পরিচালক সারোয়ার হোসেনও মিডিয়ার প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন- ‘আসলে আমাদের ছবিকে মিডিয়া ঠিক মতো কাভারেজ দেয়নি। আমার ফেসবুক, সাইমনের ফেসবুক আর বিপাশার ফেসবুক, এই তিনটি ফেসবুক থেকে প্রচারণা চালিয়েছি। আমাদের আর কতজন ফলোয়ার আছে, যে সারা দেশে ছবির খবর পৌঁছে যাবে?’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত