প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জমির উদ্দিন সরকার ও এমাজ উদ্দিনের জন্মবার্ষিক পালিত

কিরণ সেখ: বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হলো দেশের দুই গুণী  ও বরেণ্য ব্যক্তির। এই দুই গুণী হলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক স্পিকার ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার এবং বিশিষ্ট রাষ্ট্র বিজ্ঞানী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ।
শুক্রবার রাতে রাজধানীর শাহবাগে পরিবাগ সংহতি বিকাশ কেন্দ্রে সতীর্থ স্বজনের উদ্যোগে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট আবদুর রেজাক খাঁন। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক , সামাজিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
রেজাক খাঁন বলেন, আইনের শাসন ও গণতন্ত্র নেই। সাংবিধানিক শাসন অনুপস্থিত । খালেদা জিয়া সহ বিরোধী রাজনীতিকদের বিরুদ্ধে মামলার অন্ত নেই। আসুন আমরা খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হই।
জমির উদ্দিন সরকার বলেন, আগের রাজনীতি ছিল ভিন্ন। একে অপরের সমালোচনা করতাম। জানার সুযোগ পেতাম। আজকে তা নেই। সংস্কৃতির পরাজয়। এক দলের রাজনীতিবিদ অন্যদলের অনুষ্ঠানে যায়না।
তিনি বলেন, নিরংকুষ ক্ষমতা আমাদের ধ্বংস করে দিতে পারে। যার প্রমাণ বর্তমানের পরিস্থিতি।
শিক্ষাজীবনের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, আগের মতো শিক্ষা নেই। ঢাবি থেকে যারা পড়ালেখা করে বেরুতো তারা কখনো কোথাও ব্যর্থ হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতেও সাহিত্য সংস্কৃতি নিয়ে যে আলোচনা হতো তা আজ নেই। পারিবারিক সুশিক্ষাও আজ নেই। কলেজগুলোতে তো আরো নেই।
তিনি বলেন, আমরা ক্ষমতার থাকাকালীন শিক্ষার ব্যাপক উন্নতি করেছিলাম। সরকারি টাকায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিল্ডিং করেছিলাম। সেশনজটও ছিলনা। আজকে শিক্ষার করুন দশা। আমাদের দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীরা যাতে বিদেশে চলে না যায় , মেধা পাচার না হয় সে জন্য প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছিলাম। কিন্তু দু:খের বিষয় আজকে স্থায়ী শিক্ষক নেই। শতাধিক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থাকলেও কয়েকটির নাম ভালো শোনা যায়।
আজকে পাকিস্তান থেকে আমরা গণতন্ত্র এনেছি। কিন্তু যারা যুদ্ধে যায়নি দেশে বসেই বলে যুদ্ধ করেছি তাকে তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বলেনা। দেশে তো গণতন্ত্র নেই।
শহীদ জিয়া গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়েছিলেন। তিনি সব রাজনৈতিক দলের অধিকার দিয়েছিলেন। গুম শব্দ তো রাজনীতিতে ছিলনা। বহু গোষ্ঠী ও ব্যক্তি এই এলাকা শাসন করেছে। তারা তো তখনকার রাজনীতিকদের শেষ করে ফেলতে পারতো। শহীদ জিয়া আর কিছুদিন বেঁচে থাকলে আমরা অনেকদূর এগিয়ে যেতাম।
জমির উদ্দিন সরকার বলেন, আমরা গণতান্ত্রিক জাতি। আজো গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের জন্য লড়াই করছি। তরুণ সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে। দেশকে এগিয়ে নিতে বহির্বিশ্বে তুলে ধরতে শহীদ জিয়ার আদর্শে দেশ গড়তে আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধ হই।
ড. এমাজ উদ্দীন আহমদ বলেন, আগামীদিনগুলো সবার জন্যই আরো ভালো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত