প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আ. লীগকে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনের পরামর্শ বিশ্লেষকদের

হ্যাপী আক্তার: রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগেরে ভোট কমলেও জাতীয় পার্টি ও বিএনটিসহ সব দলেরই ভোট বেড়েছে। তাই এই নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণ যোগ্য হওয়ায় সরকার হিসেবে আওয়ামী লীগ সফল দল হলেও দলের জন্য এটি সতর্ক বার্তা বলে মনে করছেন, বিশ্লেষকরা। সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করতে হবে বলেও মনে করেন নির্বাচন বিশ্লেষকরা। সূত্র: সময় টিভি

সিটি করপোরেশন গঠনের পর রংপুরেরম প্রথম নির্বাচন ২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর। নির্দলীয়স সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সরফুদ্দিন ঝন্টু এক লাখ ৬ হাজার ২২৫ ভোট পেয়ে রংপুরের প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন। গেল ২১ ডিসেম্বরের নির্বাচনে তিনি ভোট পেয়েছেন মাত্র ৬২ হাজার ৪০০ ভোট।

২০১২ সালে জাতীয় পার্টি থেকে বহিষ্কৃক মোস্তাফিজার রহমান যেখানে ৭৭ হাজার ৮০৫ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছিলেন। এবার তিনি জাতীয় পার্টির হয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে প্রায় ১ লাখ ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

অন্যদিকে, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা ২০১২ সালে ভোট পেয়েছিলেন ২১ হাজার ২৩৫ ভোট, একটু বেড়ে এবার তার ভোট ৩৫ হাজার ১৩৬।

সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের পর্যবেক্ষণ বলছে, প্রথমবারের মত দলীয় প্রতীক নিয়ে হয়ে যাওয়া রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ভোট কমেছে ৪১ শতাংশ। সেখানে জাতীয় পার্টির ভোট বেড়েছে ১০৬ শতাংশ, বিএনপির ৬৫ শতাংশ এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ৫৩ শতাংশ।

নির্বাচন পর্যবেক্ষক বদিউল আলম মজুদদার বলেন, আওয়ামী লীগ যদি একই প্রার্থী দিয়ে সাধারণ মানুষের ভোট না পেয়ে থাকে, আর অন্যরা একই প্রার্থী দিয়ে যদি ভোট বেশি পেয়ে থাকে, এতে করে বুঝা যায় সাধারণ জনগণ হয়তো পরিবর্তন চায়।

তিনি আরও বলেন, ২০১২ সালের মেয়র নির্বাচন ও ২০১৭ সালের নির্বাচনের পার্থক্য শুধু মার্কা পরিবর্তন। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ভোট কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে, আর অন্যদের ভোট বেড়েছে। এটি আওয়ামী লীগের জন্য এটি একটি কঠোর বার্তা।

বর্তমানে ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগেরই একমাত্র ভোট কমায় এবং বাকি সব দলেই ভোট বাড়ায়, এটি সরকার দলের জন্য অশনি সংকেত বলছেন বিশ্লেষকরা।

নির্বাচন পর্যবেক্ষক ড. তোফায়েল আহমেদ বলেন, রংপুর নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগ কৌশলী হয়ে বলেছেন এখানে গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে। এখানে সরকার হিসেবে তাদের সফলতা, কিন্তু দল হিসেবে তাদের ব্যর্থতা রয়েছে।

সরকারের জন্য একদিকে গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের চ্যালেঞ্জ এবং রাজনৈতিক দল হিসেবে নিজেদের ঘর গুছিয়ে সামনের নির্বাচনগুলোতে আওয়ামী লীগকে মাঠে নামতে হবে বলেও পরামর্শ তাদের।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত