প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উত্তরায় অন্ধকার গলি থেকে যুবকের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার

নুরুল আমিন হাসান : রাজধানীর উত্তরার একটি অন্ধকার গলি থেকে আসিফ (১৬) নামের এক যুবকের রক্তাক্ত মরাদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধারকালে ওই যুবকের বাম হাতে স্যালন লাগানোর পাইপ লাগানো ছিল। অপরদিকে নিহতের মাথা থেকে রক্ত ঝরছিল।

উত্তরার আব্দুল্লাহপুরের পশ্চিম পাশের পাম্পের পিছনের ৯ নম্বর সেক্টরের অন্ধকার গলি থেকে বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে লাশটি উদ্ধার করে পশ্চিম থানা পুলিশ।

নিহত ওই যুবক উত্তরা ৯ নম্বর সেক্টরের এসপি সাহেবের বাড়ির ভাড়াটিয়ে কামাল হোসেনের ছেলে।

নিহতের পিতা কামাল হোসেন আমাদের সময় ডটকমকে জানান, ‘উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টরে ভাঙ্গারীর দোকানদারী করি। দোকানে কাম (কাজ) ছিল। এ সময় আসিফও সাথে ছিল। পরে কাম শেষ হয় সন্ধ্যা ৭ টার দিকে। তারপর ওকে ১৫০ টাকা দিয়ে ১২ নম্বর থেকে থেকে বাসায় যাওয়ার জন্য পাঠাইছি। পরে ফোন দিলে বলে, গোসল করে খাওয়া দাওয়া করে বের হইছি।’

তিনি আরো জানান, অতঃপর রাতে নাদিম নামের একজন ফোন দিয়ে বলে, ‘তোমার ছেলে ৯ নম্বরে পরে আছে। পরে এসে দেখি ছেলের রক্তাক্ত লাশ।’

সরেজমিনে দেখা যায়, নিহতের মাথা থেকে রক্ত বের হচ্ছে। ওই যুবকের ফুল হাতা গেঞ্জি ও জিন্সের প্যান্ট পরিহিত ছিল। হাতে স্যালাইন লাগানোর পাইপ রয়েছে। এছাড়াও দুই পায়ে ছেছড়ানো দাহ রয়েছে।

আসিফের মা হাসিনা আমাদের সময় ডট ক্কমকে জানান, ‘বাসা থেকে সাড়ে সন্ধ্যায় খাওয়া দাওয়া করে বের হয়। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ৯ নম্বর সেক্টরের ৬ নম্বর রোডে দেখা হয়। এ সময় আমি অফিস (বাইনিং হাউজ) থেকে বাসায় ফিরছিলাম। তখন ওর সাথে পিঠাওলির একটা ছেলে ছিল। আমি ডাক দিলে ও আমাকে কিছুটা এগিয়ে দেয়। পরে ওই ছেলে আবার ডাক দিলে ও চলে যায়। সর্বশেষ রাতে মেরে ফেলে গেছে বলে খবর পাই’।

লাশ উদ্ধারের বিষয়ে উত্তরা পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোফাজ্জল হোসেন আমাদের সময় ডটকমকে জানান, ধারণা করা হচ্ছে সড়ক দুর্ঘটনায় তিনি মারা গেছেন। সড়ক দুর্ঘটনার পর ওকে হাসপাতালে নিয়েও যাওয়া হয়েছিল। যখন মারা গেছে তখন ওকে অন্ধকার গলিতে লাশ ফেলে রেখে গেছে।

তিনি আরো জানান, তাই টঙ্গী হাসপাতালে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। কে বা কারা নিয়েছিল তা জানার জন্য।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত