প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দাবি না মানলে আমরণ অনশনসহ কঠোর কর্মসূচি : শিক্ষক নেতারা (ভিডিওসহ)

এ জেড ভূঁইয়া আনাস : রাজপথের ধারে শ্লোগান দিয়ে দিন পার করছেন মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষকরা। মহান এই পেশায় নিজেদের জড়িয়ে বেতনভাতা ছাড়াই ১৫-২০ বছর কাজ করে যাচ্ছেন। রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা গত তিনদিন থেকে অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। সরকার থেকে এখনো কোন আশ্বাস পানি। টিভিএনএ’র সাথে সাক্ষাৎকারে শিক্ষক নেতারা তাদের দাবিগুলো তুলে ধরেন।

এসম্পর্কে নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আবদুল হামিদ বলেন, আমাদের শিক্ষকরা ১৫-২০ বছর শিক্ষকতা করেও বেতন পাচ্ছে না। প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে আমরা দীর্ঘদিন থেকে আন্দোলন করে যাচ্ছি। সরকার থেকে বারবার আশ্বাস পেলেও কোন সফলতা পাওয়া যায়নি। সফল হওয়া পর্যন্ত এবার আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

২০০৬ সাল থেকে আন্দোলন করে আসছে নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা। ২০১০ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ১৬০০ প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করে। এরপর থেকে প্রতিটি আন্দোলনে সরকার থেকে আশ্বাস দিলেও তা কার্যকর হয়নি। তবে এবার আর আশ্বাস নয় যেকোন মূল্যে আন্দোলন সফল করতে চান শিক্ষক নেতারা।

সংগঠনটির সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান বিন সোলায়মান বলেন, আমরা গত তিনদিন ধরে অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু সরকার থেকে এখনো আমাদের সাথে কোন ধরণের যোগাযোগ করা হয়নি। বৃহস্পতিবারের মধ্যে যোগাযোগ না করা হলে রাতে কেন্দ্রীয় কমিটির মিটিংয়ে আমরণ অনশনসহ কঠোর কর্মসূচি আসতে পারে।

এমপিওভুক্ত না হওয়ায় নিজেদের পরিবার নিয়ে সমস্যায় আছেন শিক্ষকরা। এতে পরিবারও ভেঙ্গে গেছে অনেকের।

আন্দোলনরত এক শিক্ষক বলেন, আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাশের হার প্রত্যেক পরীক্ষায় ৯০-৯২ শতাংশ। কিন্তু আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এখনও নন-এমপিওভুক্ত। আমি কোন বেতনভাতা পাই না। যার কারণে আমার স্ত্রী আমাকে ছেড়ে চলে গেছে।

আন্দোলনরত এক শিক্ষিকা বলেন, আমরা অনেকদিন থেকে আন্দোলন করে আসছি। কিন্তু সরকার আমাদের জন্য কোন ব্যবস্থা করেননি। এবার আন্দোলন সফল হওয়ার আগে আমরা এখন থেকে যাবো না।

ইতোপূর্বে ২৬ বার আন্দোলন করেও দাবি আদায় হয়নি নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের। তবে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে এবার নিজেদের অধিকার আদায় হবে এমনটাই প্রত্যাশা করছেন জাতি গঠনের এই কারিগররা।

সূত্র : টিভিএনএ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত