প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পথে পথে বাধা
নেতাকর্মীদের শোডাউন নিয়ে বাসায় ফিরলেন খালেদা জিয়া

মাঈন উদ্দিন আরিফ : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে পথে পথে বাধা অতিক্রম করে নেতাকর্মীদের শোডাউন নিয়েই গুলশানের নিজ বাসভবন ফিরোজাতে ফিরলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় পুরান ঢাকার বকশীবাজার আলিয়া মাদরাসার মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালত থেকে বের হন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। আদালত থেকে বের হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মোড়ে আসলেই অপেক্ষমাণ নেতাকর্মীরা তার গাড়িবহরে যুক্ত হন। বিকেল ৩টা ১০মিনিটে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে শোডাউন করে সামনে অগ্রসর হন তিনি।

হাইকোর্টের ভেতরে অপেক্ষমান নেতাকর্মীরা বের হতে চাইলে কিছু সময়ের জন্য সময়ের জন্য গেট আটকিয়ে রাখলেও খালেদা জিয়াকে বহনকারী গাড়িটি দোয়েল চত্বর অতিক্রম করার কিছুক্ষণ পরই গেট খুলে দেয়া হয়। এ সময় মিছিল স্লোগানে গাড়িবহরের সঙ্গে যুক্ত হন হাইকোর্টের ভেতর অবস্থানরত নেতাকর্মীরা। এর পরে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের গেটে গাড়িবহরে থাকা নেতাকর্মীদের আটকিয়ে দেয় পুলিশ। এর কিছুক্ষণ পর আবার ছেড়েও দেওয়া হয়। পরে হাইকোর্টের সামনে অবস্থিত কদম ফোয়ারা, মৎস্য ভবন মোড়, কাকরাইল, ভিআইপি রোড হয়ে মগবাজার পর্যন্ত নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ধীরে ধীরে অগ্রসর হয়ে ফ্লাইওভার দিয়ে বাসায় ফিরেন খালেদা জিয়া।

এই নিয়ে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, খালেদা জিয়ার গাড়ি বহরে থাকা নেতাকর্মীদের পথে পথে বাধা দিয়েছে সরকার এবং সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে নেতাকর্মীদের আটক করেছে পুলিশ। সরকার যতই নির্যাতন করুক, বিএনপিকে দমানো যাবে না। অবিলম্বে আটক কৃত নেতাকর্মীদের মুক্তিও দাবি করেন তিনি।

একই সময় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সভাপতি ইউনুস মৃধা, সাবেক কমিশনার মো. মোহনসহ ৯ জন নেতাকর্মীকে হাইকোর্ট এলাকা থেকে পুলিশ আটক করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ও দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন নবী খান সোহেল।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার আদলতে আশা যাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিদিনই আটক করা হচ্ছে নেতাকর্মীদেরকে। বাধা দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন জাগায়।

সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর হাজিরাকে কেন্দ্র করে গত সপ্তাহে ছাত্রদলের ৩৩ জন নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন সংগঠনটির সভাপতি রাজিব আহসান। তবে বৃহস্পতিবার ১৫ জন নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি। আটক কৃতরা হলেন, ছাত্রদল ঢকেন্দ্রীয় সংসদের সহ-আইন বিষায়ক আশরাফ জালাল খান মনন, ঢাকা মহনগর দক্ষিণের যুগ্ম সম্পাদক পাভেল শিকদার, কর্মী, কবিনজরুল কলেজের বায়েজিদ মিয়া, তিতুমির কলেজের যগ্ম সম্পাদক ইসমাইল হোসেন জনি, লালবাগ থানার সহ-সভাপতি রাজু শিকদার, মাদরাসা-ই আলীয়ার আমিনুল ইসলাম ফুয়াদ, শাহাবাগ থানার আবদুল্লাহ তাদবীরসহ ১৫ জনকে আটক করা হয়। তবে এই বিষয়ে রমনা বিভাগের ডিসি মারুফ হোসেন সর্দার বলেছেন, শাহাবাগ এবং পল্টন থানায় অনেকেই আটক রয়েছে। এখনি সংখ্যা বলা যাচ্ছে না। আটক কৃতদের যাচাই-বাছাই চলছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত