প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শাহজালালের তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণ নিয়ে অসন্তোষ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণের কাজ শুরু হতে দেরি হওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

বৃহস্পতিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এ নিয়ে আলোচনায় সদস্যরা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। কমিটি সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য বিমানমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, আলী আশরাফ, কামরুল আশরাফ খান, তানভীর ইমাম, রওশন আরা মান্নান এবং সাবিহা নাহার বেগম অংশ নেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণে বেশ কিছু আইনি জটিলতা রয়েছে। জটিলতা নিরসনে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বলা হলেও তা নেওয়া হয়নি। বিমানবন্দরে প্রাইভেট হেলিকপ্টারের যে হ্যাঙ্গার রয়েছে সেটা সরিয়ে নতুন করে করতে হবে—এই কাজটিও এখন শুরু হয়নি। এসব নিয়েই অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সিভিল এভিয়েশনের বেশিরভাগ প্রকল্প শেষ করতে নির্ধারিত সময়ের তুলনায় অনেক বেশি সময় ব্যয় হচ্ছে—এজন্য কমিটি তাদেরকে সতর্ক করেছে।’

২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শাহজালাল বিমানবন্দরে তৃতীয় টার্মিনাল, দ্বিতীয় রানওয়ে এবং অন্যান্য অবকাঠামো উন্নয়নে আন্তর্জাতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের প্রাথমিক সম্ভাব্যতা প্রতিবেদন ও খসড়া মাস্টার প্ল্যান উপস্থাপন করা হয়। এতে বলা হয়, বর্তমানে শাহজালাল বিমানবন্দরে বছরে ৮০ লাখ যাত্রীকে সেবা দেওয়ার সক্ষমতা রয়েছে। কিন্তু ওই বছরের প্রথম পাঁচ মাসেই ৬৭ লাখ যাত্রী এ বিমানবন্দর ব্যবহার করেছেন। দেশের প্রধান এই বিমানবন্দরের যাত্রী সংখ্যা প্রতি বছর ৯ দশমিক ৫ শতাংশ হারে বাড়তে থাকায় ২০১৯ সালে নতুন টার্মিনালের প্রয়োজন হবে। ওই মহাপরিকল্পনা উপস্থাপন অনুষ্ঠানে দ্রুততম সময়ের মধ্যে তৃতীয় টার্মিনালের কাজ শেষ করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কিন্তু উন্নয়ন সহযোগীরা এ প্রকল্পে অর্থায়নে রাজি না হওয়ায় দেখা দেয় জটিলতা। পরে জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা) এ প্রকল্পে অর্থায়নে রাজি হয়। চলতি বছরের ২৪ অক্টোবর প্রকল্পটি একনেকের অনুমোদন পায়। ২০২২ সালে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা। প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ হাজার ৬১০ কোটি ৪৬ লাখ ৮৫ হাজার টাকা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত