প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এতিমদের টাকা মেরে খাওয়া জাতির জন্য চরম লজ্জাকর

অধ্যাপক অপু উকিল : বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া এতিমদের টাকা আত্মসাৎ করেছেন। ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায়, বাংলাদেশের বহু নেতার বিরুদ্ধে বহু মামলা হয়েছে, সাজা হয়েছে, সেসকল নেতারা আইনগতভাবে মামলার মোকাবেলা করেছেন। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়ার মতো এমন লজ্জাকর মামলা আর কোনো নেতার বিরুদ্ধে হয়নি। মামলার মাধ্যমে এতিমদের টাকা মেরে খাওয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এতিমদের টাকা মেরে খাওয়ার অভিযোগ উঠাই জাতির জন্য চরম লজ্জাকর।
বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে তো আওয়ামী লীগ সরকার মামলা করেনি।

মামলা করেছে তারই পোষ্য সন্তানেরা। ফখরুদ্দিন-মইনুদ্দিন সরকার বিএনপি এবং হাওয়া ভবনের অপকর্মের সৃষ্ট ফসল। তাদের একজনকে বিএনপি ওয়ার্ল্ড ব্যাংক থেকে হায়ার করে এনেছিল, আরেকজনকে পদ ডিঙিয়ে পদোন্নতি দিয়েছিল। খালেদা জিয়ার পছন্দের সেই ব্যক্তিরাই তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। এখানে আওয়ামী লীগ সরকারের হাত কোথায়? মামলার রায় প্রভাবিত করার ক্ষমতা যদি আওয়ামী লীগ সরকারের হাতে থেকে থাকে, তাহলে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা কিভাবে ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করতে পারে? বর্তমান সংসদকে অকার্যকর বলতে পারে? বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বির্তকের সৃষ্টি করতে পারে? সেখান থেকেই প্রমাণিত হয়, বিচার বিভাগ সম্পূর্ণ স্বাধীনভাবে কাজ করছে। কোনো মামলার রায় প্রভাবিত করার ক্ষমতা এবং ইচ্ছা কোনোটাই সরকারের নেই। বেগম জিয়ার মামলার রায় যা হওয়ার, আদালতের মাধ্যমেই হবে।

বেগম জিয়া এতিমদের টাকা আত্মসাৎ করেছেন। তিনি ভাল করেই জানেন, এই মামলার ভবিষ্যৎ কি হবে। তাই তিনি ভয় পেয়েই আওয়ামী লীগকে দোষারোপ করছেন। কিন্তু আমার কথা হচ্ছে, আওয়ামী লীগ কেনো নীল নকশা করে খালেদা জিয়াকে রাজনীতি এবং নির্বাচনের বাইরে রাখতে যাবে? আওয়ামী লীগ জনগণের দল। তাই আওয়ামী লীগ ভাল করেই জানে, নীল নকশা করে কোনো রাজনীতিককে রাজনীতির বাইরে রাখা যায় না। বরং তার জনপ্রিয়তা আরও বেশি বেড়ে যায়। তাহলে আওয়ামী লীগ কেনো নিজেই নিজের পায়ে কুড়াল মারতে যাবে? নীল নকশা করে বেগম জিয়াকে রাজনীতির বাইরে রাখার চেষ্টায় যেহেতু আওয়ামী লীগের লাভের চেয়ে ক্ষতির বোঝাই ভারি, সেহেতু জনগণ এমনটা ভাবছে না। বিএনপির কথা প্রলাপ ছাড়া আর কিছুই নয়।

বাংলাদেশের জনগণ ভাল করেই জানে। নীল নকশার রাজনীতি আওয়ামী লীগ অতীতে কোনো দিন করেনি, বর্তমানেও করছে না এবং ভবিষ্যতেও করবে না। কেননা, আওয়ামী লীগ বাংলার গ্রাম-গঞ্জের কৃষকের ঘাম গায়ে মেখে উঠে এসেছে। বাংলার জনগণ জানে, নীল নকশার রাজনীতি করে বিএনপি। বঙ্গবন্ধু কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নীল নকশা করে গ্রেনেড হামলা কারা করেছিল? গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ায় শেখ হাসিনার জনসভায় বোমা পুতে রাখাসহ এরকম বার বার তাকে হত্যার চেষ্টা করেছে কারা? এসকল প্রশ্নের উত্তর দেশের সকল জনগণ জানে।

সেখান থেকেই প্রমাণ হয়ে যায়, ষড়যন্ত্র এবং নীল নকশার রাজনীতি কারা করে। ষড়যন্ত্র এবং নীল নকশার রাজনীতি তারাই করে, যারা জনগণ থেকে একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। বিএনপি জনগণ থেকে একেবারে বিচ্ছিন্ন হওয়ার কারণেই তারা আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার জন্য, শেখ হাসিনাকে বার বার হত্যা করার জন্য হামলা করেছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ জনগণের দল। জনগণ আমাদের মূল চালিকা শক্তি। তাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে হত্যা, ষড়যন্ত্র এবং নীল নকশার রাজনীতি করতে হয় না।
পরিচিতি : সাবেক সংসদ সদস্য
মতামত গ্রহণ : লিয়ন মীর
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত