প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শাহজালালে বৈদেশিক মুদ্রাসহ ২ ভারতীয় আটক

নুরুল আমিন হাসান : হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রাসহ দুই ভারতীয় নাগরিককে গ্রেফতার করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, বান্টি সনি ও রামেশ কুমার বারমা। এ সময় তাদের কাছ থেকে বাংলাদেশী টাকায় ১৮ লাখ ৪২ হাজার টাকা মূল্য মানের বৈদেশিক মুদ্রা জব্দ করা হয়।

বিমানবন্দরের বহির্গমনহল থেকে বুধবার বিকেলে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক (ডিজি) ড. মঈনুল খান আমাদের সময় ডটকমকে জানান, শাহজালাল বিমানবন্দরে দুই ভারতীয় নাগরিক দোহা যাবার প্রাক্কালে তাদের হ্যান্ড ব্যাগের ভেতর বিশেষভাবে পেপারে মোড়ানো অবস্থায় বৈদেশিক মুদ্রা জব্দ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় কলকাতার হাওড়ার বান্টি সনি ও ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগনার রামেশ কুমার বারমাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা কিওআর ৬৩৫ ফ্লাইটে দোহা যাচ্ছিলেন।

তিনি জাননা, ওই যাত্রীদের কাস্টমস হলে নিয়ে এসে তল্লাশি করে বান্টি সনির কাছ থেকে ৩৫ হাজার ১৬৫ মূল্যমানের কাতার রিয়াল ও ২২১ ইউ এস ডলার এবং রামেশ কুমারের কাছ থেকে ৪৫ হাজার মূল্যমানের কাতার রিয়াল ও ২ হাজার ২৩০ মূল্যমানের ভারতীয় রূপি উদ্ধার করা হয়। যা বাংলাদেশি টাকায় এসব মুদ্রার পরিমাণ ১৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা। এই মুদ্রা তারা চোরাচালান করার চেষ্টা করছিলেন মর্মে প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়।

জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে ডিজি বলেন, যাত্রীদ্বয় গত ২২ ডিসেম্বর কলকাতা থেকে বেনাপোল হয়ে ঢাকায় আসেন। এরপর তারা হাজীক্যাম্পে রাত যাপন করেন।

হাজীক্যাম্পে অবস্থান শেষে ২৪ ডিসেম্বর ঢাকা-দোহা গমনপূর্বক একই মাসের ২৫ তারিখ তারা ঢাকায় ফেরত আসেন। পাসপোর্ট চেক করে দেখা যায়, উভয় যাত্রী ২০১৭ সালে ০৫ বার কলকাতা-ঢাকা এবং ০৮ বার ঢাকা-দোহা যাতায়াত করেছেন। অতঃপর আজ (বুধবার) বিকালে পুনরায় তারা ঢাকা-দোহা যাচ্ছিলেন।

তিনি জানান, জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেন যে, ২৪ ডিসেম্বর ঢাকা-দোহা যাতায়াত কালেও তারা মুদ্রা বহন করেছিলেন এবং দোহা-ঢাকা ফেরত পথে স্বর্ণ বহন করেছিল।

বাদল নামক এক জনৈক বাংলাদেশিকে টাকার বিনিময়ে দীর্ঘদিন যাবত তাদের মত আরো অনেককে এই কাজে ব্যবহার করে আসছেন মর্মে তারা তথ্য প্রদান করেন। তাদের ফোন থেকে প্রাপ্ত বাদলের মোবাইল যাচাই করে দেখা যায়, তারা গ্রেফতারের পূর্ববর্তী মুহূর্তেও মুঠোফোনে বাদলের সাথে কথোপকথোন করেছেন।

এ ঘটনায় তাদেরকে শুল্ক আইন ও মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে গ্রেফতার করা হয়েছে। একইসাথে অন্যান্য আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও ডিজি জানান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ