প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রতারক স্বামীর বিচার দাবিতে গৃহবধূর সংবাদ সম্মেলন

ইসমাঈল হুসাইন ইমু: প্রতারক স্বামীর খপ্পরে পড়ে স্বর্ণালঙ্কার, আসবাবপত্র ও পাসপোর্টসহ মূল্যবান সামগ্রী হারিয়েছেন দিপা খন্দকার নামের এক গৃহবধূ। এছাড়াও প্রতারকের সাজানো মামলার হয়রানিতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন তিনি। হারানো সামগ্রী উদ্ধার ও হয়রানি থেকে বাঁচতে সংশ্লিষ্ট আইন প্রয়োগকারি সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ওই গৃহবধূ।

বুধবার সকালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন (ক্র্যাব) কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দিপা খন্দকার জানান, বাংলাদেশ কো-অপারেটিভ জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানিতে চাকুরীরত মো. মোখলেছুর রহমানের সঙ্গে ২০১৫ সালের ১ মার্চ বিয়ে হয়। পরে ৫ লাখ টাকার আসবাবপত্র ও ৩২ ভরি স্বর্ণালঙ্কারসহ ওয়ারির স্বপ্ন কুঞ্জ ভবনের একটি ফ্ল্যাটে ওঠেন। কিছুদিন পর মোখলেছ তাকে বেআইনি কর্মকান্ডে তার সাথে কাজ করতে বলেন। কিন্তু তিনি এতে রাজি না হওয়ায় চলতি বছরের ২০ এপ্রিল মিরপুরের তার মায়ের ঠিকানায় তালাক নোটিশ পাঠান। এ কথা শুনে তিনি মিরপুরের মায়ের বাসায় যান এবং ৬ মে ওয়ারির বাসায় ফিরলে ভবনের দারোয়ান ও মালিক তাকে বাঁধা দেয়। বাসায় থাকা জিনিষপত্র নেয়ার কথা বললেও তাকে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। এ ঘটনায় তিনি ওয়ারি থানায় একটি জিডি করেন।

তিনি আরো জানান, তিনি যেনো মোখলেছের অবৈধ কর্মকান্ডের ঘটনা কাউকে বলতে না পারে তার জন্য গত ১৮ মে মোখলেছের গাড়ীচালক আদনানের নেতৃত্বে ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা তাকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে জখম করে। এ ঘটনায় মতিঝিল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। বিষয়টি মিমাংসার কথা বলে গত ১১ জুলাই ভোর সাড়ে ৪টার দিকে মিরপুরের বাসা থেকে পুলিশ তাকে তুলে থানায় নিয়ে যায়। দীর্ঘ সময় আটক রাখার পর ৫ হাজার ইয়াবা দিয়ে একটি মিথ্যা মামলায় আদালতে চালান দেয়। সাড়ে তিন মাস কারাভোগ শেষে তিনি জামিন পান। গৃহবধূ থেকে তাকে ইয়াবা ব্যবসায়ী বানানোর চেষ্টা করছে মোখলেছ। তিনি মোখলেছের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবি করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত