প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বটবৃক্ষের আত্মকাহিনী

আফজাল হোসাইন মিয়াজী : একটি বট বৃক্ষের কথা বলছি…। রঙের দ্যুতি ছড়াতে ছড়াতে যার জীবন শুরু হয়। সবুজ শ্যামল সজীবতায় জীবন থাকে পরিপূর্ণ। যৌবন তার ভারী সুন্দর ফুলে ফলে সুশোভিত থাকে। রঙিন ফল তার বাহারি সৌন্দর্যের মহিমা ছড়ায়। প্রচ- খর তাপে কৃষাণীরা ভর দুপুরে ক্লান্ত শরীরে বটবৃক্ষে নিচে এসে ছায়া গ্রহণ করে। পরিশ্রান্ত শরীর এলিয়ে বিশ্রাম নেয়। আবার যাওয়ার সময় কেউবা পাতা ছিঁড়ে নিয়ে যায়, আবার কেউ ডাল কেটে নিয়ে যায়, কেউবা আবার খুঁচিয়ে আঠা বের করে নিয়ে নেয়। গাছটি কখনো উঁহ শব্দটিও করে না। এমনকি ছায়া দিবেনা এমনটিও বলে না…

বছরান্তে সেই বটবৃক্ষটি যৌবন হারিয়ে বার্ধক্যে উপনীত হয়, তখন গাছটির আর রূপ সৌন্দর্য থাকে না। শরীরেও আগের মতো শক্তি সামর্থ থাকে না। যাদের সে একসময় আগলে রাখতো, এখন তারা আর কাছে আসে না। অবহেলিত হয়ে বিষাদে পরিপূর্ণ হয়ে যায় আনন্দঘন জীবন। যারা একসময়ে গাছটিকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হতো, সময়ের বিবর্তনে তারাই দূরে সরে যায়। সুখের জীবন ক্রমাগতভাবেই দূর্বিষহ হয়ে পড়ে। এই মায়াবী মোহভরা পৃথিবীটা জ্বালাময়ী হয়ে উঠে। শুধু অন্তীম জীবনের প্রতীক্ষায় প্রহর গুনতে থাকে সেই বটবৃক্ষের ন্যায় সংসারের জন্য আত্মত্যাগী মানুষটি। আমাদের পরম শ্রদ্ধেয় বাবা।
লেখক : সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত