প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পোল্ট্রি ফিডের ২৫ ভাগই অনিরাপদ

মতিনুজ্জামান মিটু : দেশে ব্যবহৃত পোল্ট্রি খাবারের ২৫ ভাগই অনিরাপদ। বাংলাদেশে প্রতি বছরে ব্যবহৃত ৩০ লাখ মেট্রিক টন পোল্ট্রি ফিডের মধ্যে ১৫ লাখ মেট্রিক টন নি¤œমানের। এর মধ্যে সাড়ে ৭ লাখ মেট্রিক টনই অনিরাপদ। রোববার রাজধানীর খামার বাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন অব বাংলাদেশ মিলনায়তনে ‘পোল্ট্রি ফিড সেক্টর নিয়ন্ত্রণ : সমস্যা ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক দিনব্যাপী কর্মশালার মূল বক্তব্যে হেড অব প্রোগ্রাম ( ফুড সেফটি) ড. জাহিদুল ইসলাম বিশ্বাস এ তথ্য তুলে ধরেন। বীজ বিস্তার ফাউন্ডেশন এবং কনজুমার এ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ যৌথভাবে এ কর্মশালা আয়োজন করে।

ড. জাহিদুল ইসলাম বিশ্বাস বলেন, এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ি জনস্বাস্থ্যের বিষয়কে অগ্রাহ্য করে শুধুমাত্র লাভের জন্য অনিরাপদ পোল্ট্রি ফিড বাজারজাত করে। নি¤œমানের ও অনিরাপদ পোল্ট্রি ফিড বাজারজাত করার পাশাপাশি অপরিকল্পিত এবং অবৈজ্ঞানিক এন্টিবায়োটিক ও ড্রাগ ব্যবহারে দেশের পোল্ট্রি শিল্প হুমকির মুখে পড়েছে। কোন খাদ্য নিরাপদ তা দেশের সাধারণ খামারিরা জানেনা। তারা বাজারে যা পায় তাই কিনে ব্যবহার করে।

কর্মশালায় বলা হয়, দেশের ক্ষুদ্র পোল্টি খামারিরা অসহায়। তাদের অবস্থা করুণ। তাদের দিকে তাকান যায়না। তারা ৬ টাকায় প্রতি পিস ডিম উৎপাদন করে বিক্রি করে সাড়ে ৪ টাকায়। মুরগীর দাম নেই। কেজি প্রতি ১০০ টাকায়ও বিক্রি করতে পারেনা। অথচ কম দামে মুরগী বেচে বেশি দামে বাচ্চা কেনে তারা।

কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব এ এস এস এম জুবেরি, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পরিচালক (ক্রপস উইং) কৃষিবিদ হানিফ মোহাম্মাদ, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব শ্যামল কান্তি ঘোষ, প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক এ কে এম আতাউর রহমান, ড. শেখ সাহিনুর রহমান, ড. এ বি এম খালেদুজ্জামান, প্রফেসর নূরজাহান সরকার, সাবেক উপ সচিব দেবাশিষ নাগ, জাতীয় পরামর্শক এএইচএম তাসলিমা আখতার, বিবিএফ এর জাহাঙ্গির আলম জনি প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন বীজ বিস্তার ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট ড. এম এ সোবহান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত