প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শীতকালীন ছুটি
সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছে ঢাবির ৬০০ শিক্ষার্থী

ফারমিনা তাসলিম: সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাতে আজ (সোমবার/২৫ ডিসেম্বর) থেকে ৬ দিন ব্যাপী প্রচার অভিযান হাতে নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। এতে প্রায় ৬০ টি জেলার ১২ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ১৬ টি গ্রামে এ কর্মসূচীতে অংশ নেবে প্রায় ছয় শতাধিক শিক্ষার্থী।

প্রচার অভিযান বিষয়ে বিবিসি বাংলা সাঙ্গে কথা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের মহাসচিব রঞ্জন কর্মকারের সাথে।

তিনি বলেন, ২০১৫ সালে অস্বচ্ছল এবং মেধাবীরা প্রায় ২ হাজারের মতো শিক্ষার্থী ছাত্রবৃত্তির জন্য আবেদন করে। সেখান থেকে ৭০৪ জনকে বাছাই করে তাদের নিয়ে বৃত্তি প্রোগ্রাম শুরু করি। আমাদের স্লোগান ছিল ‘শিক্ষা ও সামাজিক উন্নয়নের জন্য বৃত্তি’। এ বছর ওই শিক্ষার্থীদের কাছে জানতে চাওয়া হয় তারা কে কে স্বেচ্ছা শ্রমের ভিত্তিতে শীতকালীন ছুটিতে গ্রামে যেতে চায় এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে সচেতনতামূলক কাজ করতে চায়? তখন ৭০৪ জনের মধ্যে ৬১০ জন এ কাজে আগ্রহ দেখায়। যারা এ কাজের সাথে যুক্ত হতে পারে।

বাছাই করা ৬০০ শিক্ষার্থীরা সেখানে কী ধরণের কাজ করবে?

জবাবে রঞ্জন কর্মকার বলেন, এ বছর আমরা যে বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিচ্ছি সেটা হলো- সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং গ্রামে প্রচার অভিযান চালাবে। সেখানে তাদের সাথে যুবক ও গ্রামের উদ্যেগী মানুষদেরকে যুক্ত করবে।

তাদেরকে কোনো ধরণের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে কী?

জবাবে রঞ্জন কর্মকার বলেন, তাদের সাথে আমরা দুই দিনব্যাপী একটা ওয়ার্কশপ করেছি। এ কর্মশালাতে তাদেরকে আমরা একটা ধারণা দেই- তারা কী কৌশলে কাজ, কীভাবে যুবকদের সংগঠিত করবে সে সম্বন্ধে। এছাড়া এই প্রচার অভিযানে তারা কী বার্তা দেবে সে বিষয়েও আলোচনা করা হয়েছে। আলোচনার পরে তাদের প্রশ্নগুলোর উত্তর আমরা দেয়ার চেষ্টা করেছি। আমাদের কমিটির পক্ষ থেকে প্রতিটি বিভাগের জন্য ৪ জন করে সহায়ক হিসেবে তাদের সাথে নিয়মিত কাজ করছে।

বাংলাদেশের মতো প্রেক্ষাপটে এ উদ্যোগ নেয়ার কারণ কী?

জবাবে রঞ্জন কর্মকার বলেন, এ উদ্যোগ আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন সময়ে চিন্তা করে রেখেছিলাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা গণতান্ত্রিক আন্দোলন, মুক্তি আন্দোলন করত- এখানে সেটাই মুখ্য ভূমিকা পালন করেছে। আমাদের সামাজিক যে সমস্যগুলো আছে সেগুলো যুবসমাজের জীবনে সবসময় বাধাগ্রস্ত করছে। এ ইস্যুগুলোকে নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দাঁড়ানো উচিত। তাই আমরা এ উদ্যেগটা নিয়েছি।

সূত্র – বিবিসি বাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত