প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তিন বছরে ১৩ হাজার ওয়েবসাইট বন্ধ করেছে চীন

আবু সাইদ: ‘আইন-কানুন ভঙ্গ’ করায় ২০১৫ সালের শুরু থেকে এ পর্যন্ত তিন বছরে ১৩ হাজারেরও বেশি ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে চীন কর্তৃপক্ষ। ২৪ ডিসেম্বর রোববার দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়ার খবরে বলা হয়, সাইবার স্পেসকে পরিষ্কার রাখতে সরকারের এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন বিপুল সংখ্যক মানুষ।

২০১২ সালে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ক্ষমতায় আরোহণের পর থেকে চীন সরকার ইন্টারনেটে কড়া নজরদারি ও নিয়ন্ত্রণ আরোপ করেছে। সমালোচকরা একে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সংরক্ষিত ও কমিউনিস্ট পার্টির সমালোচনা বন্ধ করার পদক্ষেপ হিসেবে বিবেচনা করে। তবে চীনা সরকারর বক্তব্য, জাতীয় নিরাপত্তা, সামাজিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে এবং সহিংস কিংবা পর্নোগ্রাফিক কনটেন্ট যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য তারা ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রণ করে।

চীনের পার্লামেন্টের স্ট্যান্ডিং কমিটির শুনানির বরাতে সিনহুয়া জানয়, কর্তৃপক্ষ সহিংস ও পর্নোগ্রাফি কনটেন্ট থাকা ওয়েবসাইট ও সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট গুলোকে লক্ষ্য বানিয়েছে। সব মিলিয়ে ১৩ হাজার ওয়েবসাইট বন্ধ করা হয়েছে এবং প্রায় ১ কোটি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হয়েছে।

জরিপের বরাতে সিনহুয়া জানায়, ৯০ শতাংশ মানুষ সরকারের এই পদক্ষেপ সমর্থন করেন। চলতি বছরের জুনে চীনে বিতর্কিত কঠোর সাইবার সিকিউরিটি আইন পাস করে, বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলোর ধারণা এতে চীনে কার্যক্রম পরিচালনা করা কঠিন হয়ে যাবে। চীনে কঠোরভাবে মিডিয়া সেন্সরশিপ বজায় আছে, বিদেশি অনেক নিউজ সাইটে প্রবেশ করা যায় না। এছাড়া সার্চ ইঞ্জিন গুগল ও সোশ্যাল মিডিয়া সাইট ফেসবুকও সেখানে নিষিদ্ধ। রয়টার্স।

সর্বাধিক পঠিত