প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমিও যা বলার বলতে পারি না

আবু সাঈদ খান : সাংবাদিক উৎপল দাস ফিরে এসেছে, শিক্ষক মোবাস্বের হাসান সিজার ফিরে এলো, তাদের পরিবার স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছে সেজন্য আমরা আনন্দিত। কিন্তু এখনো সামাজিক উৎকন্ঠা কাটেনি। কেননা, এখনো সেই সকল পরিবারের স্বজনদের চোখের জল ঝরছে। স্বজনেরা পথ চেয়ে বসে আছে, যেসকল পরিবারের সদ্যসরা এখনো ফিরে আসেনি। তাহলে আমি কিভাবে বলবো, উৎকন্ঠা কেটে গেছে?

যারা এখনো ফিরে আসেনি, তারা কোথায় আছে? এরপর হচ্ছে যারা ফিরে এসেছে, তারা কোথায় ছিল? কেমন ছিল? এই সকল তথ্য উদঘাটনের দায়িত্ব হল প্রশাসনের। আমি মনে করি, হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তিদের খুঁজে বের করার জন্য সরকারের একটা বিশেষ কমিশন গঠন করা উচিত। সেই কমিশনের প্রধান কাজ হবে হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তিদের খুঁজে বের করা এবং ফিরে আসা ব্যক্তিদের সম্পর্কে সকল তথ্য উদঘাটন করা। কেননা, এখন পর্যন্ত যারা ফিরে এসেছে তারা কিছুই বলছে না। তবে মুখ দেখে মনে হয়, তারা কিছু বলতে চায়। তারা কিছু লুকাচ্ছে। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে কিসের ভয়ে তারা মুখ খুলছে না। তাই কমিশনের কাজ হবে গুরুত্বের সাথে এই সকল ব্যক্তিদের কাছ থেকে তথ্য বের করা। যার ফলে গুমের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়ার আশঙ্কা কমে যাবে।

আমার কাছে সবচেয়ে বেশি আশ্চর্য লাগে তখন, যখন দেখি ফিরে আসা ব্যক্তিদের সম্পর্কে সরকারের তথ্য জানার জন্য তেমন কোনো দৃশ্যমান আগ্রহ নেই। বিভিন্ন মহল থেকে প্রশাসনের দিকে আঙুল তুলা হচ্ছে। কিন্তু উত্তর আসছে না। তাই সমাজের সকলের মতো আমিও নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে পড়ে যাই। একজন সাংবাদিক হিসাবে যখন কিছু বলতে যাই, তখন যা বলার বলতে পারি না। যা লিখার লিখতে পারি না। এমন অবস্থা চলতে পারে না। যদি এই পরিস্থিতি বিরাজমান থাকে, তাহলে সরকারের সকল অর্জন ম্লান হয়ে যাবে।

পরিচিতি : সিনিয়র সাংবাদিক
মতামত গ্রহণ : লিয়ন মীর
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুর অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত