প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমেরিকা না থাকলেও জাতিসংঘ চলবে

ড. আব্দুল্লাহ হেল কাফি : জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী করার সিদ্ধান্তটি একটি অনৈতিক, অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত ছিল। জেরুজালেরম নিয়ে যে একটি সমস্যা ছিল, সেটা সমাধান না করে সমস্যাটি আরও বৃদ্ধি করেছে। তাই যারা পৃথিবীর মঙ্গল চায়, পৃথিবীতে শান্তি চায়, তারা ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখ্যান করেছে। ১২৮টি দেশ ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছে। ট্রাম্পের এই বিষয়টি বোঝা উচিত। পৃথিবীতে কেউ চিরদিন ক্ষমতায় থাকে না। আমরা এর আগে এমন অনেক নজির দেখেছি। বড় বড় ক্ষমতাসীন মানুষ ক্ষমতাহীন হয়েছে।

মানুষ মরণশীল। একজন ক্ষমতাধর লোক চলে গেলে পৃথিবী বসে থাকে না। পৃথিবী তার নিজের গতিতে চলবে। জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন দূত নিকি হ্যালি যেটা বলেন, তারা জাতিসংঘের সবচেয়ে বড় ডোনার। তাদের বিপক্ষে যাওয়া ঠিক হবে না। তিনি কথাটি সঠিক বলেননি। কারণ, ট্রাম্প এবং আমেরিকা যদি না থাকে, তাহলেও জাতিসংঘ চলবে। পৃথিবী চলবে। তাছাড়া আমেরিকার মতো আরও অনেক বড় বড় কুতুব দেশ আছে, যারা জাতিসংঘকে চালাতে পারবে। কিন্তু আমেরিকা ভাবছে, তারা ছাড়া পৃথিবীতে ক্ষমতাধর দেশ আর নেই। তাই তারা জাতিসংঘের সিদ্ধান্তের বিপক্ষে কথা বলছে। আমি মনে করি, ট্রাম্পের এই বিষয়গুলো মাথায় রাখা উচিত।

পরিচিতি : অধ্যাপক, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ, জাবি.
মতামত গ্রহণ : গাজী খায়রুল আলম
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত