প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোববার সাফ ফুটবলের ফাইনালে বাংলাদেশ – ভারত মুখোমুখি

এল আর বাদল : মহিলা (অনূর্ধ্ব-১৫) সাফ ফুটবলের ফাইনালে রোববার (২৪ ডিসেম্বর) লড়াইয়ে নামছে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও ভারত। কে হচ্ছে চ্যাম্পিয়ন? এই প্রশ্নই যেনো ঘুরপাক খাচ্ছে সর্বত্র। তবে জয়ের পাল্লাটা যে বাংলাদেশের দিকেই ঝুঁকে আছে, সেটা কিন্তু আগেই লাল-সবুজ দলের মেয়েরা আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে।

গত বৃহষ্পতিবার লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে ভারতকে ৩-০ গোলে হারিয়ে কোচ গোলাম রাব্বানীর শিষ্যরা নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ত্ব প্রমাণ করে রেখেছেন। ওই জয়ের ধারাবাহিকতাই বজায় রেখে ফাইনালে জিততে চায় বাংলাদেশের মেয়েরা।

কমলাপুরে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে দুপুর দু’টায় চ’ড়ান্ত লড়াই অনুষ্ঠিত হবে। ফাইনাল ম্যাচ সামনে রেখে আজ দুই দল শেষবারের মতো নিজেদের ঝালাই করে নিয়েছে। অনুশীলন শেষে শেষে স্বাগতিক দলের কোচ ছোটন বলেছেন, আমাদের আর একটা ম্যাচ বাকি। সেটা হলো ফাইনাল। ৩টা ম্যাচ এরই মধ্যে খেলে ফেলেছি। আমাদের যে ল্য ছিল সেটা পূরণ করে ফেলেছি। নিজেদের খেলার মধ্যে থাকতে হবে। ফাইনালে আমরা জয়ের জন্য নামবো। দর্শকদের আনন্দ দিবো।

কোচ বলেন, আমাদের নিজেদের যে খেলা, সেটা নিয়েই খেলোয়াড়দের সঙ্গে আলাপ করেছি। মাঠে ফিনিশিংয়ের দিকটাও চিন্তা করতে হচ্ছে। যাতে করে ভালো ব্যবধানে জেতা যায়। ফিনিশিং ভালো হলে আরও বড় ব্যবধানে জয় লাভ করতে পারবো।

বাংলাদেশ দলের নতুন খেলোয়াড় মিডফিল্ডার শামসুন্নাহার ও ঋতুপর্না চাকমা লিগ পর্বে দারুণ খেলছেন। কোচের ভাষায়, ওদের খেলা দেখে মনে হয়নি যে ভারতের বিপে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে খেলছে। এটা আমাদের ভালো দিক। ঋতুপর্ণাও ভালো করছে। নতুন যারা এসেছে ভালো পারফরম্যান্স করছে। যে ১১ জন ভালো করছে, সেই ১১ জনই ভারতের বিরুদ্ধে ফাইনাল ম্যাচ খেলবে।

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মারিয়া মান্ডা বলেছেন, আমাদের একটা খেলা বাকি আছে। ফাইনাল জিতলে আমরা আরও বেশি উচ্ছ্বসিত হবো। স্যার (কোচ) আমাদের ভুলগুলো শোধরানোর জন্য কাজ করেছেন। সামনের ম্যাচ নিয়ে ভাবছি। তিন ম্যাচে যেভাবে খেলেছি, সেভাবে খেলতে পারলে জিতবো। দর্শকরা এলে আরও উৎসাহিত হবো।

এদিকে ভারতের কোচ মায়মল রকি বাংলাদেশকে শক্ত প্রতিপক্ষ মনে করলেও তারা সহসা ছেড়ে দিবেন না বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, লিগ পর্বে বাংলাদেশের কাছে পরাজয়টাই ফাইনালে আমাদের আরো বেশি সাহসী করেছে। ভারত সেরাটা খেলেই চ্যাম্পিয়ন হবে বলে আমার বিশ্বাস।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত