প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুস্থ না হয়েই ঘরে ফিরল মুক্তামনি

ইমতিয়াজ মেহেদী হাসান : দীর্ঘ ৬ মাস ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরলো সাতক্ষীরার মুক্তামনি। ফিরেই খুশিতে ঝলমলিয়ে উঠলো রক্তনালীর টিউমারে আক্রান্ত মলিন এ শিশুর মুখ।

সদর উপজেলার দক্ষিণ কামারবায়সার গ্রামের বাড়িতে শুক্রবার রাতে মুক্তামনিকে বহন করা অ্যাম্বুলেন্সটি পৌঁছলে এলাকাবাসি আনন্দে উচ্ছ্বসিত হয়ে ওঠে। এর আগে সকালে ঢামেক থেকে মুক্তামনিকে নিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন তার পরিবারের সদস্যরা।

বাড়ির মাটি ছুঁতেই নিমিষেই মিলিয়ে গেল মুক্তামণির প্রায় ১২ ঘণ্টার ভ্রমণক্লান্তি। মুখে খেলে যায় তৃপ্তির ঝলকানি। খেলার সঙ্গী, প্রতিবেশী ভাই-বোনদের নাম ধরে ডাকতে থাকে সে।

এ সময় অনুভূতি জানতে চাইলে সে সাংবাদিকদের বলে, ছয় মাস পর বাড়ি আইচি। আমার অনেক ভাল লেগতিছ। হাসপাতালে থাকলিও বাড়ির কথা আমার সুবসময় মনে পইড়তো। অনেকদিন পর বাড়ি আসলাম, সবার সাথে দেখা হবে। খুব ভাল লেগতিছ।

মুক্তামনির বাবা ইব্রাহিম হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব নিয়ে আমার মেয়ের চিকিৎসা করিয়েছেন। ব্যস্ততার ভেতরেও খোঁজ-খবর নেয়ার পাশাপাশি সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন। এজন্য তাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। শুধু তাই নয়, তিনটি ওষুধ আর অ্যাম্বুলেন্স খরচও দিয়ে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ডা. সামন্ত লাল সেন স্যার বলেছেন নিয়মিত তার সাথে যোগাযোগ রাখতে। সুবিধা-অসুবিধা জানাতে। এবং একমাস পর চেকআপের জন্য আবারও  ঢাকায় যেতে।

মুক্তামনির শারীরিক পরিস্থিতি এখন কেমন জানতে চাইলে ইব্রাহিম বলেন, মুক্তা এখনো পুরোপুরি সুস্থ্য না। বাড়িতে ফেরার ইচ্ছা প্রকাশ করায় ডা. সাহেব তাকে নিয়ে আসতে বলেন। এবং কীভাবে রাখতে হবে তাও বলে দিয়েছেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন বলেন, মুক্তামনির ছয়টি অপারেশন করা হয়েছে। আরও করা লাগবে। কিন্তু পরিবার ও মুক্তামনি বাড়ি যেতে চাওয়ায় অনুমতি দেয়া হয়েছে।

১২ বছরের মেয়ে মুক্তামনির ডান হাতে দেড় বছর বয়সে একটি ছোট গোটা দেখা দেয়। পরে তা বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে হাতে বিকট আকৃতির ফোলা নিয়ে গত ১১ জুলাই ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি হয় মুক্তামনি।

গণমাধ্যমে তার রোগ নিয়ে একাধিক খবর প্রকাশিত হওয়ার পর তোলপাড় সৃষ্টি হয়। স্বাস্থ্য সচিব ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক এরপর তার চিকিৎসার যাবতীয় দায়িত্ব নেন। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই গ্রহণ করেন মুক্তামনির চিকিৎসার দায়িত্বভার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত