প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্কুলে শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে ফ্রান্স

হ্যাপী আক্তার: স্কুলের শিক্ষার্থীদের হাতে মোবাইল ফোনের অপকারিতা উদ্বিগ্ন ফ্রান্স। স্কুলে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে ফ্রান্স। অন্যদিকে বাংলাদেশেও মোবাইল ব্যবহার করে পর্ণগ্রাফিতে আশক্ত হয়ে পরছে শিশুরা। এক গবেষণায় উঠে এসেছে এসব তথ্য।

মোবাইল ফোনের সাথে স্মার্টফোন যুক্ত হওয়াতে হাতের মুঠোয় এসেছে বিশ্ব। আর এই মোবাইলটি যখন শিশুদের হাতে তখন বিষয়টি ভাবনার বিষয়। ফ্রান্সের শিক্ষকরা অভিযোগ করছেন, মোবাইল ফোন ব্যবহার শিশুরা ঠিক মতো পড়ায় মন দেয় না। আর পড়ানোর সময়ও তাদের মন মোবাইলেই পড়ে থাকে।

এ সম্পর্কে ফ্রান্সের শিক্ষামন্ত্রী বলছেন, ‘ক্লাসের বিরতির সময় খেলার মাঠে বাচ্চারা যায় না মোবাইলেই আটকে থাকে। এতে তাদের শৈশবের বিকাশ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে, সব শিক্ষকদের একই মত। ২০১৮ সেপ্টেম্বর থেকে ফ্রান্সের স্কুলগুলোতে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ হতে হচ্ছে।’

বাংলাদেশের পরিস্থিতিও খুব একটা আশাব্যাঞ্জক না। চোখের সমস্যা নিয়ে শুধু চোখের হাসপাতাগুলোতেই গড়ে ৮ থেকে ১৪ বছরের শিশু রোগীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এই তথ্য এসেছে মানবাধীকার সংস্থা মানুষের জন্য ফাইন্ডেশনের একটি গবেষণায়। সে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৭৭ শতাংশ স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রী পর্ণগ্রাফিতে আশক্ত হয়েছে। এই সবই হয়েছে মুঠোফোন ব্যবহারের কারণে।

মোবাইল ফোন আশক্তিতে যে রোগ হয় তার নাম নমোফোনিয়া। যুক্তরাষ্ট্রে গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘পিউ রিসার্চ’ সেন্টারের মতে পৃথিবীর প্রায় ৬ দশমিক ৮ বিলিয়ন মোবাইল ফোন ব্যবহারের বেশির ভাগই এই রোগে আশক্ত।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মাহফুজুর রহমান বলেন, স্মার্ট ফোনে যাতে ডিভাইজ ব্যবহার না করতে পারে তার জন্য আমাদের শিক্ষা পদ্ধতিও পরিবর্তন করতে হবে। তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে পরীক্ষায় পুরনো পদ্ধতি নিয়ে বেশি দুর আগানো যাবে না। তাই আধুনিক পদ্ধতি চালু করার পরামর্শ দেনে তিনি।

নতুন প্রজন্মের মেধার পুরোপুরি বিকাশের সার্থে স্কুলে মোবাইল ফোন ব্যবহার নিয়ে ভাবার এখনি সময় বলে মনে করেন মাহফুজুর রহমান।

সূত্র: নিউজ টুয়েন্টিফোর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত