প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানবাধিকারে মিশরের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি

কায়রো, মিশর থেকে উজ্জল হোসেন খান : সরকার চাইলে যে কোন দেশের মানবাধিকার ব্যবস্থা শক্তিশালী করতে পারে।  মিশর তেমনই এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

আরব বসন্ত মূলত হয়েছিল মানবাধিকার সংক্রান্ত বিষয়গুলোকে কেন্দ্র করে। আরব বসন্তকে কেন্দ্র করে জঙ্গি সংগঠন ব্রাদারহুডের ক্ষমতা দখল এবং সামরিক বাহিনী কর্তৃক পুনরায় গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সময় অসংখ্য মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা ঘটেছে। নিকট অতীতে মিশর বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড,  বিচারিক দীর্ঘসূত্রিতা,  সাংবাদিক নির্যাতনসহ বহুমূখী মানবাধিকার লংঘনের ঘটনায় অভিযুক্ত ছিল। তবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল সিসি ক্ষমতায় আসার পর মানবাধিকার বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেন। প্রেসিডেন্ট একটি শক্তিশালী মানবাধিকার কমিশন গঠণ করে দেন। এরপর থেকে সরকারি মানবাধিকার কমিশন মিশরের প্রতিটি সেক্টরে স্বাধীনভাবে কাজ করা শুরু করে।

ইতিমধ্যে ১০০ জনের বেশি গোয়েন্দা, পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের বিভিন্ন অপরাধে সাজা প্রদাণ করা হয়েছে। এর মধ্যে আমনাত দৌলা বা ন্যাশনাল সিকিউরিটির করেকজন কর্মকর্তার যাবৎ জীবন সাজা ভোগের রায় হয়েছে। মিশরের কারাগারে বিভিন্ন অপরাধে ৭ জন সাংবাদিক আটক আছেন। প্রতিটি বিষয়ের জন্য সরকারি মানবাধিকার কমিশনের আলাদা আলাো সেল আছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে মিশরের তথ্য মন্ত্রনালয় আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে স্টেট ইনফরমেশন সার্ভিসের প্রধান ডঃ ডিয়া রাশওয়ান দুঃখ প্রকাশ করে বলেন  “বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক কারনে বিশ্ব মিডিয়া মিশরের মানবাধিকার বিষয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে। অথচ আমরা বরাবর বলে আসছি কোন অভিযোগ থাকলে সুনির্দিষ্টভাবে জানান আমরা উপযুক্ত ব্যবস্থা নেব। আপনাদের বুঝতে হবে মিশর অনেক বড় একটি দেশ, একদিনেই পুরো ব্যবস্থা পরিবর্তন করা সম্ভব নয়। তবে আমাদের টিম দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। আপনারা অচিরেই একটি আধুনিক মিশর দেখতে পারবেন।”

বাংলাদেশি সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয় সব ধরনের বিচারিক ব্যবস্থা দ্রুত করার জন্য বেশ কিছু প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া অনেকগুলো আইন সংশোধনের কাজ চলমান রয়েছে। এছাড়া মিশরের প্রতিটি কারাগারে শীততাপ যন্ত্র,  প্রয়োজনীয় বিশুদ্ধ খাদ্য ও চিকিৎসা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। নিকট ভবিষ্যতে মিশরের বিচারিক কার্যক্রম যে কোন উন্নত দেশের মত দ্রুততার সাথে সম্পন্ন হবে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত