প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৩৩% নারী প্রতিনিধিত্ব রাখবে আ’লীগ

মামুন : আগামী ২০২০ সালের মধ্যে দলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করবে আওয়ামী লীগ। বর্তমান ৮১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটিতে প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনাসহ ১৫ নারী রয়েছেন। নারী নেতৃত্বের হারের দিক দিয়ে এই সংখ্যা প্রায় ১৯ শতাংশ (১৮ দশমিক ৫১ শতাংশ)।

সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) চিঠি দিয়ে এমন তথ্য জানিয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি।

নিবন্ধন শর্তাদি প্রতিপালন-সংক্রান্ত প্রতিবেদন চেয়ে ইসির পক্ষ থেকে গত ৩১ অক্টোবর আওয়ামী লীগসহ নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছিল। সম্প্রতি আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষরে ইসির ওই চিঠির জবাব পাঠানো হয়। এতে রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধনের শর্তাদি পূরণে দলের অগ্রগতি তুলে ধরা হয়।

আওয়ামী লীগের চিঠিতে জানানো হয়, দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কেন্দ্রীয় কমিটিসহ সব পর্যায়ের (ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা, জেলা ও মহানগর) কমিটি কাউন্সিলরদের মাধ্যমে গঠন করা হয়েছে। সর্বশেষ গত বছরের ২২ ও ২৩ অক্টোবর দলের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলে বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করা হয়।

নারী নেতৃত্ব নিশ্চিত করা বিষয়ে চিঠিতে আরও জানানো হয়, দলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে ১৫ নারী ও সংসদে আওয়ামী লীগের ১৬ নারী সংসদ সদস্যসহ সংরক্ষিত নারী আসনে ৪২ সংসদ সদস্য রয়েছেন। আর দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী, সংসদের স্পিকার, সংসদ উপনেতাসহ মন্ত্রিপরিষদে চারজন ও উপদেষ্টা পরিষদে দুজন নারী রয়েছেন।

সহযোগী সংগঠন বিষয়ে এতে বলা হয়েছে, দলীয় গঠনতন্ত্রের ২৫ (২) ধারা অনুযায়ী দলের সহযোগী সংগঠন হিসেবে রয়েছে মহিলা আওয়ামী লীগ, কৃষক লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদ (সাবেক আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ), তাঁতী লীগ, যুব মহিলা লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ ও ছাত্রলীগ। কার্যত, সংগঠনগুলো তাদের নিজেদের গঠনতন্ত্র দ্বারা পরিচালিত হয়ে থাকে। তবে যে কোনো প্রগতিশীল সংগঠনকে আওয়ামী লীগ পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে থাকে।

চিঠিতে বলা হয়, দলীয় গঠনতন্ত্রের ২৭ ধারা অনুযায়ী আওয়ামী লীগ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিতেই দলীয় সভাপতির নেতৃত্বে গঠিত দলের সংসদীয় বোর্ডের মাধ্যমে চূড়ান্ত করা হয়।

ইসির গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের (আরপিও) ৯০-এর খ-এর খ (২) অনুচ্ছেদ ২০২০ সালের মধ্যে সব রাজনৈতিক দলের সব পর্যায়ের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী সদস্য রাখার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে এই সংখ্যক নারী প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ২০০৮ সালে নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত হয়েছিল রাজনৈতিক দলগুলো। ওই লক্ষ্যমাত্রা পূরণে হাতে আছে মাত্র দুই বছর।

তবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ দলগুলোর কেন্দ্রীয় থেকে তৃণমূলের সব কমিটিতে নারীর প্রতিনিধিত্ব বাড়লেও আরপিওতে বেঁধে দেওয়া লক্ষ্য পূরণের পথে এখনও অনেকটা পিছিয়ে আছে সব দলই। অধিকাংশ দল গত নয় বছরে লক্ষ্যের অর্ধেকও পূরণ করতে পারেনি। সমকাল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত