প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আজ ইসির রংপুর পরীক্ষা

তারেক :  কড়া নিরাপত্তা। কেন্দ্রে কেন্দ্রে পুলিশ। আনসার সদস্যরাও অবস্থান নিয়েছে। আর প্রধান সড়কে টহল দিচ্ছে বিজিবি। র‌্যাবও নিয়েছে নানা প্রস্তুতি। কেন্দ্রের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে হেলিকপ্টার টহলও দেবে সংস্থাটি। রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে রাত থেকেই তৎপর নির্বাচন কমিশনও। আজ সকাল ৮টা থেকে শুরু হবে ভোট গ্রহণ। দায়িত্ব নেয়ার পর ইসির সামনে এ নির্বাচন এক বড় চ্যালেঞ্জ। আর তাই গোটা দেশের দৃষ্টি এখন রংপুরে। সন্ধ্যার পরই জানা যাবে কে হচ্ছেন রংপুরের মেয়র। ভোটের দিনকে ঘিরে তাই ২০৫ বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে এখন উৎসবের আমেজ।

 

ভোটে ব্যক্তির সঙ্গে মর্যাদার লড়াইয়ে প্রধান তিন দল ও প্রতীক। নৌকা, ধানের শীষ আর লাঙ্গলের ভোটযুদ্ধকে মর্যাদার লড়াই হিসেবে দেখছে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পুরো রংপুরে ঘোষণা করা হয়েছে সরকারি ছুটি। সিটি করপোরেশনের নিয়ন্ত্রণ নিতে মরিয়া আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি ও বিএনপি। ভোট বিশ্লেষকরা বলছেন, লড়াই হবে ত্রিমুখী। জাতীয় পার্টির ঘাঁটি বলে পরিচিত এ সিটি করপোরেশনে জয় নিজেদের ঘরে নেয়ার স্বপ্ন দেখছেন দলটির নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়রের চেয়ার দখল রাখতে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু। শেষ মুহূর্তে মাঠে লড়াইয়ে আসা বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী কাওছার জামান বাবলাও নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। এদিকে মঙ্গলবার রাত থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নগরীর প্রধান প্রধান সড়কে বিজিবি’র টহল শুরু হয়েছে। রিটার্নিং অফিসার সূত্রে জানা গেছে, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নগরীর আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় ভোটের আগের দিন এবং ভোটের পরের দিন বিজিবি’র ২১ প্লাটুন সদস্যকে মাঠে নামানো হয়েছে। এই ২১টি প্লাটুনকে ভাগ করে নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডে ১টি করে ইউনিট মোতায়েন রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশন ভোটগ্রহণে সব ধরনের প্রস্তুতি সেরে রেখেছে।

 

নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ২ হাজার ২৩১ জন পুলিশ এবং ৫১৫ জন আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে। রংপুর নির্বাচন কমিশনের আঞ্চলিক অফিস সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্র আরও জানায়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এসব সদস্য ভোটগ্রহণের দিন এবং ভোটগ্রহণের পূর্ববর্তী ও পরবর্তী সময়ের জন্য ভোটকেন্দ্র ছাড়াও বাইরে অবস্থান করবেন। তারা মোবাইল টিম, স্ট্রাইকিং ফোর্স, স্ট্যান্ডবাই ফোর্স, পাহারা, চেকপোস্ট, সেক্টর ডিউটিসহ বিভিন্ন শিরোনামে এসব দায়িত্ব পালন করবে। নির্বাচনে মোট ১৯৩টি কেন্দ্রের মধ্যে ১২৮ টিকেই ঝুঁকিপূর্ণ ধরা হয়েছে। রিটার্নিং ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা সুভাষ চন্দ্র সরকার জানান, নির্বাচনের দিন ১২৮টি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে একজন করে এসআইয়ের নেতৃত্বে একজন এএসআই, পাঁচজন কনস্টেবল এবং তিনজন আনসার ব্যাটালিয়ন সদস্যসহ ১০ জন করে মোট এক হাজার ৮০ জন, ৬৫টি সাধারণ কেন্দ্রে একজন এসআইয়ের নেতৃত্বে একজন নায়েক, পাঁচজন কনস্টেবল এবং একজন করে ব্যাটালিয়ন আনসারসহ আটজন করে মোট ৫২০ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। ৩৩টি ওয়ার্ডে ৩৩টি মোবাইল টিম মাঠে থাকবে। একজন ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার পুলিশ কর্মকর্তার নেতৃত্বে ৩ জন এএসআই, ৪ জন কনস্টেবল এবং ২ জন ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্যসহ মোট ৩৩০ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবেন। তিনি জানান, পুরো সিটি করপোরেশন এলাকায় ১৬টি স্ট্রাইকিং ফোর্স মোতায়েন থাকবে। নির্বাচন-পূর্ববর্তী সময়ে পুরো সিটি এলাকায় দুই শিফ্‌টে ১৬টি স্ট্যান্ডবাই টিম কাজ করবে। সুভাষ চন্দ্র সরকার জানান, নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ৩৩টি ভ্রাম্যমাণ আদালত, নগরীতে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এর নেতৃত্বে ১১টি বিচারিক আদালত এবং র‌্যাব, বিজিবি’র আলাদা টিম কাজ করবে।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কাউকে প্রভাব বিস্তার ও কেন্দ্র দখলসহ কোনো ধরনের অরাজকতা করতে দেয়া হবে না জানিয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি জারি করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। আর যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ডগ স্কোয়াডসহ সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে র‌্যাব। ভোটন্দ্রেগুলোর পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে সিটি করপোরেশন এলাকায় হেলিকপ্টার টহলও দেবে সংস্থাটি। বুধবার দুপুরে সিটি নির্বাচন উপলক্ষে নেয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রস্তুতি এবং র‌্যাব’র প্রেসব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানা গেছে। সকালে রংপুর পুলিশলাইন মাঠে নির্বাচনী সরঞ্জাম গ্রহণ এবং ভোটকেন্দ্রে সার্বিক নিরাপত্তা দেয়ার বিষয়ে পুলিশ ও আনসার সদস্যদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখেন রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুখ, রিটার্নিং অফিসার সুভাষ চন্দ্র সরকার, রংপুরের জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুজ্জামান ও পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান। ডিআইজি বলেন, কোনো বিশৃঙ্খলা সহ্য করা হবে না। ভোটাররা যাতে ভোটকেন্দ্রে নিরাপদে যেতে পারেন আবার ভোট দিয়ে নিরাপদে ফিরে আসতে পারেন তার জন্য সব ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ভোট দেয়া প্রত্যেকের গণতান্ত্রিক অধিকার। এ অধিকার থেকে যাতে কাউকেই বঞ্চিত করার অপচেষ্টা কেউ না করে সে জন্য কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি ঘোষণা দেন। রিটার্নিং অফিসার সুভাষ চন্দ্র সরকার বলেন, দেশে-বিদেশে রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন কেমন হয় তা দেখতে মানুষ অপেক্ষা করছে। আমরা নির্বাচন নিরপেক্ষ অবাধ ও সুষ্ঠু করতে যে কোনো ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত। প্রভাবশালী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যেই হোক-কাউকেই এক চুল ছাড় দেয়া হবে না। জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুজ্জামান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, আপনাদের অবস্থান ও কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করছে দেশে-বিদেশের শ’ শ’ টেলিভিশন ক্যামেরা আর সাংবাদিক। কেউ এমন কোনো কাজ করবেন না যেন বিতর্ক সৃষ্টি হয়। তিনি বলেন, আমরা অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন করার জন্য যে কোনো ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত রয়েছি। এ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সততার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি। পরে দুপুর ১ টা থেকে নির্বাচনী সরঞ্জাম প্রিজাইডিং অফিসারদের কাছে বিতরণ করা শুরু হয়েছে। এদিকে, র‌্যাব’র পক্ষ থেকে দুপুরে নগরীতে মোটরসাইকেল ও গাড়ি নিয়ে মহড়া দেয়া হয়। পরে নগরীর পায়রা চত্বরে প্রেসব্রিফিং করেন র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক কমান্ডার আতিকুল্লাহ। তিনি বলেন, রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে র‌্যাব’র টহল টিম কাজ করবে। এছাড়াও পুরো নগরী টহল দেবে র‌্যাব’র টিম। তিনি জানান, যে কোনো অরাজক পরিস্থিতি ঠেকাতে র‌্যাব’র হেলিকপ্টার ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট এবং ডগ স্কোয়াড কাজ করবে। ভোটাররা যাতে নিরাপদে ভোট দিতে পারেন সে জন্য সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এদিকে নির্বাচনে অংশ নেয়া ২৮৩ প্রার্থীর প্রায় সকলেই ভোট কারচুপি ও কেন্দ্র দখল ঠেকাতে নিজ নিজ কর্মী-সমর্থকদের প্রস্তুত থাকার নির্দেশসহ সকল প্রকার অরাজকতা প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে। নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ হলেও ফেসবুক ও মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে ভোটারদের ভোট ও সমর্থন আদায়ে শেষ চেষ্টা করে যাচ্ছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

আচরণবিধি লঙ্ঘন: নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে মঙ্গলবার রাত ৮টার পরও রংপুর নগরীতে শোডাউন করেছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু। প্রায় দশটি জিপ-মাইক্রো ও অর্ধশতাধিক ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় মাইক লাগিয়ে প্রচারণা চালান ঝন্টু। এ সময় সিটি বাজারের সামনে কর্তব্যরত ম্যাজিস্ট্রেট তাদের বাধা দিলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বাকবিতণ্ডা করে। তারা দাবি করে নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে শোডাউন করছে। এ বিষয়ে রিটার্নিং অফিসের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাইদ ও রোমানা আফরোজ নিরুপায় হয়ে ফেরত যান। রংপুর সিটিতে আজ সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে ভোটগ্রহণ চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। দলীয় প্রতীকের এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-বিএনপি-জাপা ছাড়াও মেয়র পদে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের প্রার্থী আবদুল কুদ্দুছ (মই), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর এটিএম গোলাম মোস্তফা (হাতপাখা) ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টি’র (এনপিপি) সেলিম আকতার (আম) এবং জাতীয় পার্টির বহিষ্কৃৃত এরশাদের ভাতিজা (স্বতন্ত্র) প্রার্থী হোসেন মকবুল শাহরিয়ার (হাতি) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ইসি’র তথ্য অনুসারে, রংপুর সিটিতে ৩৩টি সাধারণ ওয়ার্ডে ১৭৯ জন এবং ১১টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৬৩ জন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নাদিরা খানম নামে তৃতীয় লিঙ্গের এক প্রার্থীও রয়েছেন। নির্বাচনে ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৯৯৪ জন ভোটার তাদের প্রতিনিধি নির্বাচনের সুযোগ পাচ্ছেন। এর মধ্যে রয়েছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৩৫৬ জন পুরুষ ভোটার এবং ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬৩৮ জন নারী ভোটার। মোট ভোটকেন্দ্র ১৯৩টি এবং ভোটকক্ষ ১১২২টি। অস্থায়ী ভোটকক্ষ হবে ১৬৬টি। ইতোমধ্যে নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। বেগম রোকেয়া কলেছে একটি কেন্দ্রে ইভিএম-এর মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হবে। এছাড়া আরও দুই কেন্দ্রে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কিন্ডার গার্টেন স্কুল ও কলেজে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নবগঠিত রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচন ২০১২ সালের ২০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে ৭৮ দশমিক ৮৭ শতাংশ ভোটার ভোট দেন। সে সময় সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু (মোটরসাইকেল) এক লাখ ৬ হাজার ২২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্র্থী জাপা থেকে বহিষ্কৃত মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা (হাঁস) ভোট পান ৭৭ হাজার ৮০৫টি। এছাড়া বিএনপি’র প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা (আনারস) ২১ হাজার ২৩৫ ভোট, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের গোলাম মোস্তফা ১৫ হাজার ৬৮১ ভোট এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাফিয়ার রহমান সফি (দোয়াতকলম) ৪ হাজার ৯৫৪ ভোট পান।

উৎসঃ মানবজমিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত