প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সড়ক দুর্ঘটনা ও আমাদের করণীয়

ইলিয়াস কাঞ্চন : সড়ক দুর্ঘটনায় গাইবান্ধা-১ আসনের এমপি গোলাম মোস্তফা আহমেদ ইন্তেকাল করেছেন। একজন সংসদ সদস্য মারা গেলেই যে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়ে গেল তা কিন্তু নয়। সড়ক দুর্ঘটনা এখন অনেক কমেছে। সড়ক দুর্ঘটনা রোধের জন্য সাংসদগণ কোনো দায়িত্ব পালন করছেন না। দীর্ঘদিন ধরে তাদেরকে আহ্বান করা হচ্ছে। সাংসদরা যদি নিজ নিজ এলাকার লোকেদের বোঝাতেন সড়ক দুর্ঘটনা রোধের জন্য তাহলে তো উপকার হতো। সাংসদরা নিজেরা এ কাজ করেন না, কাউকে করতেও বলেন না। ছিনতাই হওয়ার সময় বাচ্চাটি মায়ের হাত থেকে পড়ে যায়। সাথে সাথে একটি পিকআপ ভ্যান এসে তাকে চাপা দিয়ে চলে যায়। এটিও সড়ক দুর্ঘটনা।

বাচ্চাটি যে রাস্তায় পড়ে গেল এটা তো ড্রাইভারের দেখার কথা নয়। আমাদের সাধারণ জ্ঞানের অভাব আছে যে একটা গাড়ি চাইলেই কিন্তু ব্রেক করতে পারে না। গাড়ি যদি জোরে চলতে থাকে, সেটি যদি হঠাৎ ব্রেক করে তাহলে ওই গাড়িটি উল্টে যেতে পারে। এতে গাড়ির সমস্ত লোক মারা যেতে পারে। একটা বিষয় দেখা তারপর ব্রেকে যাওয়ার জন্য তিন সেকেন্ড সময় লাগে। একটি গাড়ি যদি ৬০ কিলোমিটার বেগে চলে তাহলে তিন সেকেন্ডে ১৬৫ স্পিড চলে যায়।

গাড়ি তো চলন্ত। বোঝা আর পা ব্রেকে দেওয়ার মধ্যে যে টুকু সময় লাগে তার মধ্যেই ঘটনা ঘটে যায়। সাংসদরা নিজেরাও তার এলাকাতেও সড়ক দুর্ঘটনার জন্য কোনো কাজ করে না। তাহলে তাদেরকে যারা ভোট দেয় তারা বেঁচে যেত।

পরিচিতি : চলচ্চিত্র অভিনেতা ও সভাপতি নিরাপদ সড়ক চাই।
মতামত গ্রহণ : সানিম আহমেদ
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত