প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উচ্চতার তারতম্যেই লুকিয়ে দাম্পত্য সুখ

শারমিন : স্বামী-স্ত্রী বিবাহের পর একটি সুখী এবং সমৃদ্ধ দাম্পত্য জীবন গঠনে স্বামী-স্ত্রী উভয়েরই সমান ভূমিকা থাকে। আর এটা সব সময় এক রকম থাকে না। কখনো কমে কখনো বাড়ে। আমাদের দেশের একটি গ্রাম্য প্রবাদ রয়েছে “সংসার সুখী হয় রমনীর গুণে।” শুধু কি রমনীর গুণই নাকি আছে আরো কিছু? নাকি লুকিয়ে আছে রহস্য।

বিয়ে মানেই হাতের পাঁচ আঙুল সমান হওয়া চাই৷ বিয়ে-শাদি’র কথাবার্তা শুরু হলে প্রথম দু-তিনটি প্রশ্নের মধ্যে থাকে ‘উচ্চতা’ প্রসঙ্গ। উচ্চতা নিয়ে খুঁতখুঁতানি সকলেরই থাকে। নিজের উচ্চতার সঙ্গে মানানসই জীবনসঙ্গী খোঁজে সকলেই। পরিবারের আয়োজনে বিয়ে হলে একদম সব বিষয়ই মনের মতো হতে হবে৷

কিন্তু জানেন কি সুখী হওয়ার চাবিকাঠি লুকিয়ে রয়েছে উচ্চতার তারতম্যে।

‘বিয়ে’ প্রত্যেকের জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় একটি বিষয়। এক্ষেত্রে জীবনসঙ্গী কেমন হবে এ নিয়ে নারী-পুরুষ উভয়ের মনেই একটা লুকায়িত স্বপ্ন থাকে। এবং জীবনসঙ্গী নির্বাচনের ক্ষেত্রে কিছু পছন্দ-অপছন্দ তো থাকেই। সঙ্গে পারিবারিক চাহিদার কথাও মাথায় রাখতে হয়।

এ পছন্দ-অপছন্দটা বয়স, শিক্ষাগত যোগ্যতা, শারীরিক সুস্থতা, চাকরি বা ক্যারিয়ার, পারস্পরিক মিল ইত্যাদি মিলিয়েই নির্ধারণ করা হয়। পাত্র-পাত্রী উভয়েরই এ ব্যাপার মনে রেখেই একটা সম্পর্কের দিকে এগুনো উচিত। শুধু কি এ বিষয়গুলোর দিকে গুরুত্ব দিলেই সব মিটে যাবে? না, তা নয়। ছেলেরা যেমন জীবনসঙ্গীর বাহ্যিক দিককে প্রাধান্য দেন, মেয়েরাও তাই।

তবে গবেষকরা জানিয়েছেন নতুন তথ্য। তাদের তথ্য মতে, অনেকেই উচ্চতার সঙ্গে মানানসই জীবনসঙ্গী খোঁজেন। এতে দেখতে সুন্দর লাগলেও তারা যে সুখী হবে এর কোনো নিশ্চয়তা নেই। বরং স্বামী-স্ত্রীর উচ্চতার পার্থক্যের মধ্যেই সুখের চাবিকাঠি লুকিয়ে থাকে।

স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে উচ্চতার পার্থক্য যত বেশি হয়, সম্পর্ক ততই সুখের হয়। তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কও খুবই গভীর হয় বলে জানান গবেষকরা।

পারসোনালিটি অ্যান্ড ইন্ডিভিজুয়াল ডিফারেন্সেস জার্নালে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, নারীরা সাধারণত লম্বা পুরুষদের প্রতি আকৃষ্ট হন। কিন্তু লম্বা পুরুষরা তাদের বেশি সুখি করতে পারেন এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে উচ্চতার পার্থক্য যত বেশি হয়, দাম্পত্য জীবন ততই সুখের হয়।

এই গবেষণা প্রকাশিত হওয়ার পর অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

তবে বর্তমানে ছেলে কিংবা মেয়ে উভয়ই স্বাস্থ্যসচেতন বিধায় ছেলেরা সাধারণত মোটাদের তুলনায় ছিপছিপে বা পাতলা গড়নের মেয়েকে বেশি পছন্দ করেন। আর উচ্চতার ক্ষেত্রে খুব বেশি লম্বা মেয়ে ছেলেদের পছন্দ নয়, এক্ষেত্রে মিডিয়াম বা খাটো উচ্চতার হলেও সমস্যা নেই। কিন্তু উভয়পক্ষেই যে ব্যাপারটি সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো পাত্র-পাত্রী দুজনকেই শারীরিকভাবে সুস্থ হতে হবে। না হলে পরবর্তীকালে এর প্রভাব সাংসারিক জীবনে পড়তে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত