প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিয়েতে যৌতুক হারাম করে দেনমোহরকে বাধ্যতামূলক করেছে ইসলাম

জাকারিয়া হারুন : ইসলাম নারীর অধিকার আদায়ে সোচ্চার। নারী জীবনের প্রতিটি বিষয়ে তার অধিকার নিশ্চিত করেছে। বাদ যায়নি বিয়েতে দেনমোহরের অধিকারও। ইসলামি শরিয়তে যৌতুককে হারাম করে দেনমোহর বাধ্যতামূলক করেছে। বিয়েতে বর কর্তৃক স্ত্রীকে দেনমোহর আদায় করা ফরজ।

পরিতাপের বিষয় হলো, দেনমোহর বিষয়ে সমাজে অজ্ঞতা ও অবহেলা বিরাজমান। ধর্মকে ভালবাসেন এমন অনেক মানুষও দেনমোহরের বিষয়ে সচেতন নন। এ বিষয়ে অবহেলা এত প্রকট যে, নফল ইবাদতকে যতটা গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন, মোহর আদায়কে তার সিকি ভাগও মনে করেন না। অথচ দেনমোহর আদায় একটি ফরজ বিধান। বান্দার অধিকার। যা আদায় করা ছাড়া মানুষ প্রকৃত দ্বীনদার হতে পারেন না। বিয়েতে স্ত্রীকে দেনমোহর প্রদান করতে হবে।

বর্তমানে দেনমোহর নামেমাত্র নির্ধারণ করা হয়। অনেকটা যেন নিয়ম রক্ষার বিষয়। আদায় করার কোনো সদিচ্ছা নেই। বিয়ের কাবিননামার ফরমে দেনমোহরের পরিমাণ লিখতে হয় তাই লেখা। অথচ দেনমোহর বিয়ে বৈধ করার মাধ্যমও বটে।

বিয়েতে দেনমোহর প্রদান প্রসঙ্গে পবিত্র কোরআনে কারিমের সূরা নিসার ৪ নম্বর আয়াতে মহান আল্লাহ নির্দেশ দিয়েছেন, “আর তোমরা স্ত্রীদেরকে তাদের মোহর দিয়ে দাও খুশীমনে। তারা যদি খুশী হয়ে তা থেকে অংশ ছেড়ে দেয়, তবে তা তোমরা স্বাচ্ছন্দ্যে ভোগ কর।”

অন্য আয়াতে মহান আল্লাহ বলেন, “এদেরকে ছাড়া তোমাদের জন্যে সব নারী বৈধ করা হয়েছে, শর্ত এই যে, তোমরা তাদেরকে স্বীয় অর্থের বিনিময়ে গ্রহণ করবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করার জন্য; ব্যভিচারের জন্য নয়। অনন্তর তাদের মধ্যে যাকে তোমরা ভোগ করবে, তাকে তার নির্ধারিত অধিকার দান কর। তোমাদের কোনো গোনাহ হবে না যদি নির্ধারণের পর তোমরা পরস্পরে সম্মত হও। নিশ্চয় আল্লাহ সুবিজ্ঞ, রহস্যবিদ।” সূরা আন-নিসা : ২৪

উপর্যুক্ত আয়াতের আলোকে বলা যায়, মহান আল্লাহর নির্দেশেই স্ত্রীকে দেনমোহর দিতে হবে। আর বিয়ের সময়ই স্ত্রীকে দেনমোহর পরিশোধ করার বিধান। স্বামী তার আর্থিক সঙ্গতি অনুযায়ী দেনমোহর দেবে। স্ত্রী দেনমোহর হিসেবে প্রাপ্ত সম্পত্তির মালিক হয়েই স্বামীর সঙ্গে সংসারযাত্রা শুরু করবে। স্বামী কর্তৃক প্রাপ্ত এই সম্পদ একান্তভাবে স্ত্রীর। এখানে অন্য কারো বিন্দু পরিমাণ অধিকার নেই। স্ত্রী ইচ্ছে করলে প্রাপ্ত দেনমোহর থেকে স্বামীকে কিছু অংশ দিতে পারে। অন্য কাউকেও দান করতে পারে। দেনমোহর স্ত্রীর ব্যক্তিগত অধিকার। দেনমোহর খরচে তার স্বাধীন ইচ্ছা।

বিয়েতে যার ইচ্ছে থাকে দেনমোহর নিছক নির্ধারণ করা। স্ত্রীকে দেনমোহর প্রদানের আদৌ কোনো ইচ্ছা থাকে না, তার সম্পর্কে হজরত মুহাম্মাদ সা. বলেছেন, “যে ব্যক্তি কোনো নারীকে কম বা বেশি দেনমোহর ধার্য করে বিয়ে করল; অথচ তার অন্তরে দেনমোহরের সে হক আদায়ের আদৌ কোনো ইচ্ছাই নেই, সে ব্যক্তি কিয়ামতের দিন মহান মহান আল্লাহর দরবারে ব্যভিচারি হিসেবে উপস্থিত হবে।’ সূত্র : তাবারানি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত