প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যার দায়ে ৩ সন্ত্রাসীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

আদালত প্রতিবেদক: রাজধানীর কদমতলীতে হুমায়ুন কবির টিটু নামে এক ব্যক্তিকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যার দায়ে তিন সন্ত্রাসীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

সোমবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক আবদুর রহমান সরদার এ রায় দেন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. সোহাগ ওরফে বড় সোহাগ, মো. মামুন শেখ ও রবিন শেখ। কারাদণ্ডের পাশাপাশি তাদের প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরো এক বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তবে এরা সবাই পলাতক রয়েছেন।

এছাড়া মনির হোসেন, মো. রুবেল ও মোহাম্মদ হোসেন ওরফে সুমনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বিচারক তাদের খালাস দিয়েছেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১০ সালের ২৬ নভেম্বর রাজধানীর কদমতলীতে সকালে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একই এলাকার সন্ত্রাসী বড় সোহাগ, মামুন, ছোট সোহাগসহ আরো ৩/৪ জন সন্ত্রাসী বাদী মোসা. রোজিনা বেগমের ভাসুরের ছেলে কবিরকে বলে যায়, ‘তোর চাচা বেশি বাড়াবাড়ি করছে। বেশী বাড়াবাড়ি করলে জীবন শেষ করে দিবো।’ এ ধরনের হুমকি দিয়ে তারা সেখান থেকে চলে যায়। এরপর বেলা সোয়া দুইটায় বাদীর স্বামী হুমায়ুন কবির টিটু ব্যক্তিগত কাজ শেষে বাড়ীতে ফেরার পথে নান্নু স্টোর নাম একটি দোকানের সামনে উপস্থিত হওয়া মাত্র সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করে। ঐ গুলি টিটুর মাথার ডান পার্শ্বে লাগে। এরপর স্থানীয় লোকজন তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এরপর নিহতের স্ত্রী কদমতলী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি তদন্ত করে কদমতলী থানার এসআই আনিসুর রহমান ২০১৩ সালের ৩১ আগষ্ট আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। এরপর ২০১৪ সালের ২৯ মে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করেন আদালত। মামলার বিচারকাজ চলাকালে আদালত ২৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত