প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অনুদানের তালিকা থেকে বাদ পড়ায় কিশোরগঞ্জের কৃষকদের ক্ষোভ

হামিম আহসান: কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের অনুদান বিতরণে অনিয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইউপি চেয়ারম্যান এবং মেম্বারদের তালিকা বাদ দিয়ে ভুয়া কৃষকের নাম ব্যবহার করে অনুদান আত্মসাতের অভিযোগ করেছে ক্ষতিগ্রস্তরা। তবে অনিয়মের অভিযোগটি ভিত্তিহীন বলে জানায় কৃষি কর্মকর্তা।

সাম্প্রতিক সময়ের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকারিভাবে কৃষক প্রতি ব্রি ২৮ জাতের পাঁচ কেজি বীজধান, ১০ কেজি পটাশ, ২০ কেজি ইউরিয়া সার এবং নগদ ১ হাজার টাকা সহয়তার ব্যবস্থা করে সরকার। এরই অংশ হিসেবে মাঠ পর্যায়ে ইউপি মেম্বার এবং চেয়ারম্যানদের সাথে সমন্বয় করে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা তৈরি করে কৃষি বিভাগ। গত ২৫ নভেম্বর থেকে তাড়াইলের সাতটি ইউনিয়নে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সরকারি সহায়তার কার্যক্রম শুরু হলেও দামিয়া ইউনিয়নে কৃষকদের অনুদান বিতরণে টালবাহানা শুরু করে কৃষি কর্মকর্তা।
ইউনিয়নের ২,০৭০ জন কৃষকের তালিকা তৈরি করা হলেও মূল তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয় ক্ষতিগ্রস্তদের। তারা জানান, কেউ মিস্ত্রির কাজ করে আবার কেউ ডাক্তার তারা সহায়তা পেয়েছে। কিন্তু যারা কৃষক, যারা দিনে রাতে মাঠে কাজ তারা সহায়তা পায়নি।

তারা আরও জানায়, প্রকৃত তদন্ত করলেই দেখা যাবে যে কে আসলে কৃষক।

এদিকে অনুদান না পেয়ে বিক্ষুব্ধ কৃষকরা ঘেরাও করে কৃষি অফিস।

দামিহা ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবীর ভূঁইয়া বলেন, ‘এখানে অর্থনৈতিক লেনদেন হয়েছে’।

অনিয়মের অভিযোগটি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুলতানা আক্তার। তিনি বলেন, ‘উপজেলার একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে আমরা দায়িত্ব দেয়া হবে। তদন্তে অভিযোগ সত্য প্রমাণিত হলে এর জন্য প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।
সূত্র: চ্যানেল ২৪

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত