প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুর্নীতিবাজদের ধরতে না পারলে দুদকে আস্থার সংকট কাটবেন না: টিআইবি

হ্যাপী আক্তার: প্রতিষ্ঠার ১৩ বছরেও প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে তেমন কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। রাজনৈতিক সরকারের আমলে মন্ত্রী-এমপিরা রয়ে গেছেন ধারা-ছোঁয়ার বাইরে। তবে দুদক চেয়াম্যানের দাবি, মন্ত্রী-এমপিরা নজরদারির বাইরে নয়। ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে ৫ সংসদ সদস্যের সম্পদের হিসাবসহ দুর্নীতির অভিযোগ। তবে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) মনে করে, দুর্নীতিবাজদের ধরতে না পারলে দুদকের আস্থার সংকট কাটবেন না। সূত্র- যমুনা টিভি

২০০৪ সালের ২১ নভেম্বর প্রতিষ্ঠিত হয় দুদক। প্রতিষ্ঠার ১৩ বছরে দুর্নীতি প্রতিরোধে কতটা ভূমিকা রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি? তা নিয়েও প্রশ্ন আছে। ওয়ান-ইলেভেনের সময় বড় দলের দুর্নীতিবাজরা দুদকের জালে আসলেও রাজনৈতিক সরকারের আমলে সেই সক্ষমতা ধরে রাখতে অনেকটাই ব্যর্থ দুদক। তবে বর্তমান চেয়ারম্যান দায়িত্ব নেবার পরে দুর্নীতি বিরোধী অভিযান কিছুটা সচল হয়ছে। বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে আমলা ও ব্যাংক কর্মকর্তাসহ ৫শ’রও বেশি আসামিকে। যদিও এসব মামলায় রানৈতিক ব্যাক্তিরা ছাড় পেয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিশেষ করে প্রশ্ন উঠেছে, বেসিক ব্যাংকের মামলায় আব্দুল হাই বাচ্চু ও তার সদস্যদের ছাড় দেয় নিয়ে।

দুদকের চেয়াম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, লিখিতভাবে সবাইকে জানিয়েছি, তদন্ত এবং ন্যায় বিচারের স্বার্থে যেকোন চেয়ারম্যান ও সদস্যের যে কাউকেই জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন বলেন তিনি।

নির্বাচনের কিছু এমপি-মন্ত্রীর আয়-ব্যয় ও সম্পদের হিসাব-নিকাশের গড়মিল থাকলেও এ বিষয়ে দুদকের অবস্থান নিয়েও রয়েছে প্রশ্ন। তাই টিআইবি বলছে, এসব বিষয়ে দুদকের ব্যাপারে আস্থার সংকট তৈরি হচ্ছে।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, আমাদের জনপ্রতিনিধির সম্পদের দুর্নীতির ওপর ভিত্তি করে শত শত জমির মালিক। তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া গিয়েছিলো। তারপরেও দুদক তাদের বিরুদ্ধে কোন কাজ করেনি। এটা এক ধরণের ব্যর্থতাও বলে তিনি।

তবে দুদকের চেয়ারম্যান বলেন, শুধু মাননীয় মন্ত্রী নয়, এমন অনেকেই আছে যাদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বর্তমানে এমন ৪-৫ জন এমপি-মন্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অনুসন্ধান ও অভিযান চলাচ্ছে দুদক।

দেশ থেকে অর্থ পাচার নিয়ে উদ্বিগ্ন দুদক। তবে আইনি ক্ষমতা কমে যাওয়ায় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া যাচ্ছে না বলে দাবি দুদক চেয়াম্যানের।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ