প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রথমবারের মতো বহুপাক্ষিক মহড়া হচ্ছে বঙ্গোপসাগরে, বাংলাদেশের জন্য এটা গর্বের: এএসএমএ আউয়াল

উম্মুল ওয়ারা সুইটি: বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় প্রথমবারের মতো বঙ্গোপসাগরে শুরু হচ্ছে বহুপাক্ষিক মহড়া। আগামী ২৯ নভেম্বর কক্সবাজারে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জাহাজ ছাড়াও নৌবাহিনী মহড়ায় ৪টি দেশের ৮টি জাহাজ অংশ নেবে। এই আয়োজনের নাম দেওয়া হয়েছে আইওএনএস (ইন্ডিয়ান ওশান নেভাল সিম্পোজিয়াম) মাল্টিলেটারাল মেরিটাইম সার্চ এন্ড রেসকিউ এক্সারসাইজ। এই আয়োজনের জন্য বাংলাদেশ গর্বের অংশীদার হয়ে রইলো। আইওএনএসর মাল্টিলেটারাল মেরিটাইম সার্চ এন্ড রেসকিউ এক্সারসাইজ সম্পর্কে সাবেক রাষ্ট্রদূত ও সহকারী নৌপ্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল এএসএমএ আউয়াল (অব.) এসব কথা বলেন।

তিনি এই প্রতিবেদককে আরো বলেন, নৌবাহিনী তাদের নিজেদের দেশের সার্বভৌমত্ব এবং নিজেদের দেশের বিভিন্ন ধরনের স্বার্থ রক্ষার জন্য কাজ করে। এরমধ্যে রয়েছে সমুদ্রে চলাচলে জলদস্যূতা, সমুদ্র দূষণ, বিভিন্ন পাচার (অস্ত্র, মাদক, মানুষ)। এছাড়াও রয়েছে জাহাজ দুর্ঘটনা এবং সাইক্লোনসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে পড়া। আইওএনএসের উদ্দেশ্য হলো জোটভূক্ত দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়ন করে এসব সংঘাত ও দুর্যোগ মোকাবেলা করা।

আইওএনএস গঠনের উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করে সাবেক এই রাষ্ট্রদূত বলেন, ভারত মহাসাগরের উপকূল রাষ্ট্রগুলো নিয়ে গঠিত ইন্ডিয়ান ওশান নেভাল সিম্পোজিয়াম (আইওএনএস) গঠনের উদ্দেশ্যই হলো মহাসাগরে বহুপাক্ষিক সহযোগিতার সূচনা করা। এরমধ্যে ভূরাজনৈতিক, ভূকৌশলগত গুরুত্ব তুলে ধরতে হবে দেশগুলোকে। এই অঞ্চলের সমুদ্রসীমায় যে বাণিজ্যিক ও দুর্যোগপূর্ণ বিষয় রয়েছে, তা মোকাবেলা করতেই এই জোট গঠন করা হয়েছে।

এমএ আউয়াল জানান, এতে জোটের ২৩ সদস্য দেশ ও ৯টি পর্যবেক্ষক দেশ অংশ নেবে। এই মহড়ায় থাকবে কিভাবে জাহাজ বা দুর্ঘটনা কবলিত এয়ারক্রাফটের ক্রুদের জীবন এবং সম্পদ রক্ষা করা যায়। এছাড়া এই মহড়ার ফলে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর নৌবাহিনীরগুলোর মধ্যে সম্পর্কোন্নয়ন হবে। একইসাথে কিভাবে দক্ষ ও সুচারুভাবে সংকট মোকাবেলা করা যায়, সেটি বেরিয়ে আসবে।

এই জোট গঠনের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরে আউয়াল বলেন, পৃথিবীর জনসংখ্যার ৩৬ শতাংশ রয়েছে এই অঞ্চলে। এটার উদ্দেশ্যে হচ্ছে- এখানে ৩৬টা উপকূলীয় দেশ, ১১টা ল্যান্ডলক দেশ, দুটো আইল্যান্ড গ্রুপের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানো। কারণ ভারত মহাসাগর হচ্ছে ৭টি মহাসাগরের মধ্যে ৩ নম্বর। দূরপ্রাচ্য, মধ্যপ্রাচ্য এবং ইউরোপের সংযোগস্থল হচ্ছে ভারত মহাসাগর। এই অঞ্চলের পৃথিবীর জনসংখ্যার ৩৬ শতাংশ লোক বাস করে। বাণিজ্যিকভাবেও ভারত মহাসাগরের গুরুত্ব রয়েছে। এর উন্নতির বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। সমুদ্রে জাহাজ চলাচলে বাংলাদেশে গতবছর ১০ থেকে ১৩ জানুয়ারি পঞ্চম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন হয়। ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ নৌবাহিনী অস্ট্রেলিয়ার নৌবাহিনীর কাছ থেকে চেয়ারম্যানশীপ গ্রহণ করে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ২৯ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ৩ দিনব্যাপী ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের নৌবাহিনী প্রধান, ঊর্ধ্বতন নৌ কর্মকর্তা ও মেরিটাইম বিশেষজ্ঞদের অংশগ্রহণে আন্তর্জাতিক সম্মেলন ‘ইন্ডিয়ান ওশান নেভাল সিম্পোজিয়াম (আইওএনএস)। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ কক্সবাজারে এই সিম্পোজিয়ামের উদ্বোধন করবেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে গতবছর ১০ থেকে ১৩ জানুয়ারি পঞ্চম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন হয়। ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ নৌবাহিনী অস্ট্রেলিয়ার নৌবাহিনীর কাছ থেকে চেয়ারম্যানশীপ গ্রহণ করে। সংস্থাটির ১ম সম্মেলন ২০০৮ সালে ভারতে, ২য় সম্মেলন ২০১০ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে, ৩য় সম্মেলন ২০১২ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় এবং ৪র্থ সম্মেলন ২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ