প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উলিপুরে রেলের জমির অবৈধ দখলে রেলপথ ঝুঁকিপূর্ণ

রোকনুজ্জামান মানু, উলিপুর (কুড়িগ্রাম) : বাংলাদেশ রেলওয়ের কয়েক একর জমি অবৈধ দখল করে মৎস্য চাষ ও বালু উত্তোলনের ফলে পাইলিং ভেঙ্গে রেলপথ ঝুঁকিপূর্ণ হয়।

বহুল আলোচিত এ ঘটনাটি বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর শেষ পর্যন্ত রেল বিভাগ দায়সারা একটি মামলা করেছেন। এ বিষয়কে কেন্দ্র করে এলাকার লোকজনের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা গেছে, পৌরসভার জোনাইডাঙ্গাঁ গ্রামের মৃত: জহির উদ্দিনের পুত্র ফজলুল হক প্রকাশ্যে রেলওয়ের কয়েক একর জমি জবর দখলে নিয়ে বালু উত্তোলন, মৎস্য খামার, চাষাবাদসহ বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করে আসছে।

ফজলুল হকের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ রেলওয়ের জমি অবৈধ দখলের অভিযোগ দীর্ঘ দিনের। ফজলুল হকের মৎস্য খামার থেকে বিপুল পরিমান বালু উত্তোলন করে লক্ষ লক্ষ টাকায় বিক্রি করায় পার্শ্ববর্র্তী ফসলি জমি, রেলপথসহ পরিবেশ মারাতœক হুমকির সম্মূখীন হয়।

মামলার বিষয়ে উলিপুর উপজেলা রেল-নৌ, যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণ কমিটির সভাপতি আপন আলমগীর জানান, ফজলুল হক যেখানে রেল বিভাগের কয়েক একর জমি অবৈধ ভাবে জবর দখলে নিয়ে ১০ লক্ষাধিক টাকার বালু উত্তোলন, মৎস্য খামার তৈরি করে লাখ লাখ টাকার মাছ চাষ করে লুটপাট করছে। এতে রেলের পাইলিং ভেঙ্গে রাষ্ট্রের লক্ষ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন হলেও সে বিষয়গুলো মামলায় উল্লেখ করা হয়নি।

এছাড়া তিনি আরও জানান, অভিযুক্ত ভূমিদস্যু ফজলুল হক সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট গোপন যোগাযোগের মাধ্যমে রেলওয়ের জমিগুলো লীজ নেয়ার কাজ প্রায় চুড়ান্ত করেছে। তিনি এই অবৈধ লিজ কার্যক্রম বন্ধের জোর দাবি জানিয়েছেন।

রেলওয়ের ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা রেজওয়ানুল হক বলেন, ফিল্ডকানুঙ্গ গোলাম নবী উলিপুর থানায় এজাহার দাখিল করেছে। তবে মামলা হয়েছে কিনা জানিনা।

মামলার বাদী বামনডাঙ্গা রেলওয়ের এস,এস এ ই/ওয়াকর্স সাঈদুর রহমান চৌধুরীকে মুঠো ফোনে একাধীকবার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

লীজ নেয়ার বিষয়ে রেলওয়ের বিভাগীয় যোন লালমনিরহাটের ডি,আর,এম নাজমুল ইসলাম জানান, লীজ কাউকে দেয়া হয়নি। আমি যতটুকু জানি মামলাটি সঠিক ভাবেই হয়েছে।

তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আতাউর রহমান জানান, মামলাটির দ্রুত চার্জসীট দেয়া হবে এবং মামলা রুজু করতে বিলম্ব হওয়া কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকেই দায়ী করেন তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত