প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জনসংখ্যা বিস্ফোরণ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বড় সমস্যা

নাফরুল হাসান : রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিচ্ছে জনসংখ্যা বিস্ফোরণ। গত দু’মাসে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে জন্ম নিয়েছে তিন হাজারের অধিক শিশু। আর সন্তান সম্ভবা আরো ৩০ থেকে ৩৫ হাজার নারী। ক্যাম্পের ছোট্ট গণ্ডিতে ক্রমবর্ধমান এই জনস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আনা না গেলে তা আরও ভয়াবহ সংকট তৈরি করবে বলে আশংকা সংশ্লিষ্টদের। তবে প্রশাসন বলছে, রোহিঙ্গাদের জন্ম নিয়ন্ত্রণে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে।

বুরকিয়াজ বেগম নামে ৩০ বছর বয়সী এক নারী জন্ম দিয়েছেন আট সন্তান। এর মধ্যেই অষ্টম সন্তান জন্ম মাত্র দু’মাস আগে উখিয়ার রোহিঙ্গা শিবিরে। তার মতো আরেক নারী জহুরা বেগম। বয়স ২৫ না পার হতেই জন্ম দিয়েছেন চার সন্তান।
বুরকিয়াজ আর জহুরা মতো এমন হাজারো নারী রয়েছে যারা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে আশ্রয় নিয়েছেন উখিয়া ও টেকনাফের বিভিন্ন রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরে। যাদের সন্তান সংখ্যা পাঁচ বা দশের বেশি।

এদিকে জন্মনিয়ন্ত্রণ নিয়েও কোনো ধারণা নেই বেশিরভাগ রোহিঙ্গার। অজ্ঞতার পাশাপাশি বেশি সন্তানে প্রভাব প্রতিপত্তি বাড়ে বলে ধারণা পোষণ করেন তারা।

এক রোহিঙ্গা জানান, ‘আমাদের সন্তান ২০টা হলেও কোন অশান্তি নেই। আরও শান্তি। মাঝে মাঝে কিছু মানুষ এসে আমাদের নিষেধ করে। আমরা তাদের কথা মানি না, আল্লাহ আমাদের যা দিয়েছে তাই ভালো।’

রোহিঙ্গাদের জন্ম নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা না গেলে তা বাংলাদেশের জন্য নতুন ভয়াবহ সংকট তৈরি করবে বলে আশঙ্কা করছেন চিকিৎসক। এ সম্পর্কে চিকিৎসক ডা. পারভীন আক্তার বলেন,‘বিভিন্ন এনজিও তাদের সন্তান হিসেব করে ওদেরকে খাবারের ব্যবস্থাটা করে দিচ্ছে।’

এদিকে প্রশাসনে কর্মকর্তা জানায়, ‘রোহিঙ্গাদের জন্মনিয়ন্ত্রণে তেমন কোন উদ্যোগ ছিল না মিয়ানমারে। তবে রোহিঙ্গাদের জন্মনিয়ন্ত্রণে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে।’

এ সম্পর্কে উখিয়ার নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন ‘জন্ম নিয়ন্ত্রণে যে সকল পদ্ধতিগুলো রয়েছে; আমাদের স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন তাদেরকে উদ্বুদ্ধ করছেন। আমাদের ফ্যামিলি বিভাগও এখানে কাজ করছে। আমরা কিছুটা সফলতা পাচ্ছি। আশা করি সময় গেলে আমরা আরো বেশি সফল হবো।’

স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া তথ্য মতে কক্সবাজারে উখিয়া ও টেকনাফে রোহিঙ্গা শিবিরের ২০ ব্লকে প্রতিদিন গড়ে জন্ম নিচ্ছে অন্তত ৪০-৫০ জন শিশু। রোহিঙ্গাদের জন্মহার স্থানীয়দের তুলনায় কয়েকগুণ বেশি।

সূত্র : সময় টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত