প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ওয়াশিংটনে পিএলও’র অফিস বন্ধ করলে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করবে ফিলিস্তিন

নাসরিন বৃষ্টি: যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে (প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশন) পিএলও’র অফিস চালু রাখার যুক্তি খুঁজে পাচ্ছে না মাকির্ন স্টেট ডিপার্টমেন্ট। এমন মন্তব্যে দেশটির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। পিএলও’র অফিস বন্ধ করলে আরব দেশে তার নেতিতবাচক প্রভাব পরতে পারে বলে জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি নেতারা। সম্প্রতি অফিস চালু রাখার চুক্তিকে নবায়ন করতে মার্কিন কর্তৃপক্ষের অনীহার প্রেক্ষিতে এমন  ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া এলো। সূত্র: বিবিসি।

১৯৮০ সালের পর এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্রের  পিএলও’র অফিস চালানোর ক্ষেত্রে বাধা এলো। ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. রিয়াদ আল মালকি বলছেন, প্রতি ছয় মাস পর পর ওয়াশিংটনে পিএলও’র অফিস চালানোর চুক্তি নবায়ন করে আসা হয়। এবার তা নবায়নে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট অনীহা দেখিয়েছে।

ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আর্ন্তজাতিক একটি বার্তা সংস্থাকে বলেছেন, দুইদিন আগে স্টেট ডিপার্টমেন্টের একটি চিঠির মাধ্যমে তারা জানতে পারেন, মার্কিন কর্তৃপক্ষ সেদেশে ফিলিস্তিনি সংস্থাটির অফিস চালু রাখার বিষয় যথেষ্ট কারণ খুঁজে পাচ্ছে না। যদিও সোমবার আইন বিশেষজ্ঞদের সাথে আলোচনার পর এই বিষয়ে পরিস্কার সিদ্ধান্ত দেয়া হবে বলে মার্কিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

পিএলও’র সেক্রেটারি জেনারেল শায়েব এরাকাত এক টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি এমন সিদ্ধান্ত নেয় তবে ফিলিস্তিনের সাথে যুক্তরাষ্ট্রে সর্ম্পকের ইতি ঘটারও হুমকি দিয়েছেন তিনি।

ইসরায়েল- ফিলিস্তিন শান্তি চুক্তিতে প্রভাব তৈরির জন্যই যুক্তরাষ্ট্রের এমন আচরণ বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর আগে জাতিসংঘে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে তদন্তের জন্যে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। এক মার্কিন কর্মকর্তা ইঙ্গিত দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তের কারণ এটাই হতে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ